DBC News
ইউরো বাছাই: জয় পেয়েছে পর্তুগাল, ইংল্যান্ড ও ফ্রান্স

ইউরো বাছাই: জয় পেয়েছে পর্তুগাল, ইংল্যান্ড ও ফ্রান্স

ইউরো বাছাইয়ে লিথুনিয়ার জালে একাই চার গোল দিয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। পর্তুগাল ম্যাচ জিতেছে ৫-১ গোলে। চার খেলায় ৮ পয়েন্টে পর্তুগীজরা এখন ইউক্রেনের পর ‘ই’ গ্রুপের দুইয়ে। অ্যান্ডোরাকে ৩-০ গোলে হারিয়ে ৬ ম্যাচের ৫টায় জিতে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে ‘এইচ’ গ্রুপের শীর্ষে আছে ফ্রান্স। আর, কসোভোর সাথে ৫-৩ এ জিতে ৪ ম্যাচে পূর্ণ ১২ পয়েন্টে ‘এ’ গ্রুপের টপার ইংল্যান্ড।

কসোভো-ইংল্যান্ড ম্যাচের তখন সব শুরু। মিনিট খানেকও পেরোয়নি। ইংলিশ ডিফেন্সে ভুলের সুযোগ নিয়ে গেস্ট কসোভোকে লিড দেন বেরিশা। সাউদাম্পটনের সেন্ট ম্যারিস স্টেডিয়ামে খেলা। হোস্টদের বিপক্ষে এগিয়ে যাওয়াটাই যেন কাল হয় কসোভার। অষ্টম মিনিটেই সমতা ফেরান রাহিম স্টার্লিং। খানিক বাদেই আবার লিড ইংল্যান্ডের। স্কোরশিটে নাম তুলেন ক্যাপ্টেন হ্যারি কেইন। এরপর, কসোভার একটা আত্মঘাতী গোলের পর ১ মিনিটের ব্যবধানে ইংল্যান্ড জার্সি গায়ে জ্যাডন সাঞ্চোর প্রথম ও দ্বিতীয় গোল পূর্ণ করেন।

৫-১ এর লিডে বিরতিতে যাওয়া ইংল্যান্ড সেকেন্ড হাফের শুরুতেই হজম করে জোড়া গোল। এতে, কসোভো স্কোরলাইন ৫-৩ করলেও পয়েন্ট নিতে ব্যর্থ হয়।

লিথুনিয়ার মাঠে খেলতে গিয়েছিলো পর্তুগাল। শুরু থেকে শেষ ডমিনেট করে খেলেছে পর্তুগীজরা। নির্দিষ্ট করে বললে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ফার্স্ট হাফে একটা গোল করা সিআর সেভেন সেকেন্ড হাফে হয়ে ওঠেন আরও বেশি ভয়ংকর। ৬১ থেকে ৭৬ মিনিট এই পনেরো মিনিটের ব্যবধানে তিনি করেছেন ৩ গোল। রোনালদোর চার গোলের সঙ্গে শেষদিকে কারভালহোর এক গোলে পর্তুগালের জয় ৫-১ এ।

আরেক ম্যাচে, বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের কাছে পাত্তাই পায়নি অ্যান্ডোরা। নিজেদের মাঠে ফরাসীরা দাপট দেখিয়েছে পুরোটা সময়। তবে, ফার্স্ট হাফে গোল ছিলো একটাই। স্কোরার ছিলেন কিংসলে কোমান।

বিরতির ঠিক পরই পরই লিড ডাবল করেন ক্লেমেন্ট ল্যাংলেট। আর, ম্যাচের ইনজুরি টাইমে ৩-০ করে তিন পয়েন্ট নিশ্চিত করেন বেন ইয়েদার।