DBC News
এমপিপুত্রের কারণে মিন্নির পক্ষে আইনজীবী নেই

এমপিপুত্রের কারণে মিন্নির পক্ষে আইনজীবী নেই

বরগুনায় রিফাত হত্যা মামলায় স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির পক্ষে দাঁড়াননি কোনো আইনজীবী। মিন্নির বাবা বলেছেন, তিন আইনজীবীর কাছে সহায়তা চেয়েও পাননি। এর পেছনে স্থানীয় সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর ছেলের নির্দেশনা ছিল বলে অভিযোগ তার। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন এমপি পুত্র সুনাম দেবনাথ।

রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী ও প্রত্যক্ষদর্শী স্ত্রী মিন্নি। হত্যায় পুত্রবধূও জড়িত- রিফাতের বাবার এমন অভিযোগে সংবাদ সম্মেলনের তিনদিন পর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মিন্নিকে বাসা থেকে নিয়ে যায় পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

গ্রেপ্তারের পর গেল বুধাবার, মিন্নিকে আদালত তোলা হলে তারপক্ষে দাঁড়াননি কোনো আইনজীবী। রিফাত হত্যার পরের দিন ফেসবুকে আসামিদের আইনি সহায়তা না দেয়ার অনুরোধ জানিয়ে পোস্ট দিয়েছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর ছেলে সুনাম দেবনাথ।

মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেনের অভিযোগ, এ কারণেই মিন্নির পক্ষে দাঁড়াননি কোনো আইনজীবী। তিনি বলেন, 'তারা আমাদেরকে বলছে যে ওপর থেকে নির্দেশ আছে মিন্নির পক্ষ থেকে কোনো আইনজীবী থাকবে না। আমি তিনজন আইনজীবীর কাছে গেলেও তারা আদালতে উপস্থিত থাকার কথা বললেও শেষ পর্যন্ত আদালতে উপস্থিত হননি।

তবে, এই অভিযোগ অস্বীকার করে এমপি পুত্র সুনাম দেবনাথ জানান, হত্যায় জড়িতরা যাতে ছাড় না পায় সে কারণেই ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছিলেন তিনি। একজন আইনজীবী হিসেবে সে তার মতামত দিয়েছে।

আইনি সহায়তা না পাওয়াকে দুঃখজনক উল্লেখ করে সচেতন নাগরিকরা বলছেন, এর দায় এড়াতে পারেন না আইনজীবীরা। বরগুনা প্রেসক্লাবের সভাপতি চিত্তরঞ্জণ শীল বলেন, 'আইনি সহায়তা পাওয়া সব নাগরিকের অধিকার। আশ্বাস দিয়েও আইনজীবীরা কেন আদালতে যায়নি তা খতিয়ে দেখা দরকার।'

বরগুনা সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন মিরাজ বলেন, 'তাকে আদালতে নেয়া হয়েছে, রিমান্ড দেয়া হয়েছে কিন্তু তার কোনো আইনি সহায়তা বা আইনজীবী না পাওয়াটা অমানবিক।'

আশ্বাস দিয়েও আইনজীবী অনুপস্থিত থাকার অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাহাবুবুল বারি আসলাম। তিনি বলেন, 'মিন্নির বাবা কোন আইনজীবীদের কাছে গেছেন তা আমরা জানি না। যদি আমাদের কাছে এমন অভিযোগ আসে যে আইনজীবী আদালতে যাবে বলে যায়নি তাহলে অবশ্যই আমরা এর ব্যবস্থা নেব।'

গত ২৬শে জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয় রিফাত শরীফকে। ওইদিনই বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যালে মারা যান রিফাত।

আরও পড়ুন

সব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এক বেলা খাবার নিশ্চিতের লক্ষ্যে 'জাতীয় স্কুল মিল নীতি' অনুমোদন

পর্যায়ক্রমে ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের সব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এক বেলা খাবার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ‘জাতীয় স্কুল মিল নীতি ২০১৯’ এর খসড়...

ট্রেনে মাদ্রাসাছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার

রাজধানীর কমলাপুরে একটি ট্রেনের ভেতর থেকে এক মাদ্রাসাছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।   বিস্তারিত আসছে...

বাবাকে হত্যার দায়ে ছেলের মৃত্যুদণ্ড

পারিবারিক কলহের জেরে বাবাকে পিটিয়ে হত্যার দায়ে ছেলে আলতাফ হোসেন খন্দকারকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ সোমবার দুপুরে, ঝলকাঠির...

তালপাতার পাঠশালায় বর্ণমালা-নামতার পাঠদান

গোপালগঞ্জের প্রত্যন্ত এক গ্রাম। সেখানে পরম আনন্দে শিশুরা শিখছে বর্ণমালা, নামতা। আর, লেখার হাতে খড়ি হচ্ছে তালপাতায় খলখাগড়ার তৈরি কলমে। শুকনো তালপাতা, নলখাগড়ার কল...