DBC News
বনলতা ও বেনাপোল এক্সপ্রেসের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

বনলতা ও বেনাপোল এক্সপ্রেসের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

ভবিষ্যতে দেশে বিদ্যুৎচালিত রেল ব্যবস্থা গড়ে তোলার পরিকল্পনার কথা জানালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার দুপুরে, গণভবনে ভিডিও কনফারেন্সে 'বেনাপোল এক্সপ্রেস' ও 'বনলতা এক্সপ্রেস' ট্রেনের বর্ধিত ট্রেনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

সারা দেশে রেলসেতুগুলো সংস্কারের গুরুত্ব তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রয়োজনে নতুন করে সেতু নির্মাণ করা হবে। যোগাযোগ ব্যবস্থার সুষম উন্নয়নে দেশব্যাপী রেল নেটওয়ার্ক গড়ে তুলতে কাজ করছে সরকার। এরই অংশ হিসেবে এবার দুই বাংলার মিলনস্থল বেনাপোলে চালু হলো বিরতিহীন আন্তঃনগর ট্রেন বেনাপোল এক্সপ্রেস।

 এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, যোগাযোগ ব্যবস্থাকে উন্নত করে মানুষকে সেবা দেয়াই আওয়ামী লীগের লক্ষ্য।

বেনাপোল ট্রেনের সাপ্তাহিক বন্ধের দিন (৭৯৫) বুধবার ও (৭৯৬) বৃহস্পতিবার। ট্রেনটি বেনাপোল থেকে ছাড়বে দুপুর ১টায়, ঢাকায় পৌঁছবে রাত ৯টায় এবং ঢাকা থেকে ছাড়বে রাত ১২টা ৪০ মিনিটে, বেনাপোল পৌঁছবে সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে।

এতদিন বিরতিহীন আন্ত নগর ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ ঢাকা-রাজশাহীর মধ্যে চলত; এখন থেকে তা ঢাকা-রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ রুটে চলাচল করবে।

সংগৃহীত কোচসমূহের অন্যতম নতুন বৈশিষ্ট্য হলো বায়ো-টয়লেট সংযোজন। ট্রেনটিতে প্রতিবন্ধী যাত্রীদের হুইলচেয়ারসহ চলাচলের সুবিধার্থে থাকছে প্রশস্ত দরজা (মেইন ও টয়লেট দরজা) এবং নির্ধারিত আসনের সুবিধা। যাত্রীসাধারণের জন্য আধুনিক ও মানসম্মত চেয়ার, বার্থ, স্টেয়ার, পার্সেল র‌্যাক, টিভি মনিটর হ্যাংগার, ওয়াই-ফাই রাউটার হ্যাংগার, মোবাইল চার্জারের ব্যবস্থা রয়েছে।

‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’ ট্রেনটি ১২টি কোচ দ্বারা চলবে। ট্রেনটিতে এসি সিট, এসি চেয়ার ও শোভন চেয়ার শ্রেণির সর্বমোট ৮৯৬টি (৭৯৫ নম্বর ট্রেনের ক্ষেত্রে) এবং এসি বার্থ, এসি চেয়ার ও শোভন চেয়ার শ্রেণির সর্বমোট ৮৭১টি (৭৯৬ নম্বর ট্রেনের ক্ষেত্রে) আসনের ব্যবস্থা রয়েছে।