DBC News
ডোপ টেস্টের তথ্য গোপন:ডিজিএম গ্রাউন্ডেড

ডোপ টেস্টের তথ্য গোপন:ডিজিএম গ্রাউন্ডেড

আবারও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী উড়োজাহাজ নিয়ে শুরু হয়েছে ব্যাপক তোলপাড়। এবার প্রধানমন্ত্রীর লন্ডন ফ্লাইটের আগমুহূর্তের ডোপ টেস্টে ধরা পড়েছে এক কেবিন ক্রু। মাসুমা মুফতি নামে ওই কেবিন ক্রুর বিরুদ্ধে মাদক গ্রহণের প্রমাণ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় রোববার মাসুমা মুফতিকে ভিভিআইপি ফ্লাইটের ডিউটি থেকে অব্যাহতিসহ গ্রাউন্ডেড করে বিমান কর্তৃপক্ষ। এছাড়া বিষয়টি গোপন করায় ফ্লাইট সার্ভিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার রঞ্জুকেও গ্রাউন্ডেড করা হয়।   

শুক্রবার সকালেই ভিভিআইপি ফ্লাইটের দায়িত্বপ্রাপ্ত ১৬ জন ক্রুকে ডোপ টেস্ট করানো হয়। এর মধ্যে মাসুমা মুফতির টেস্ট ছিল পজিটিভ। ভিভিআইপি ফ্লাইটের দায়িত্ব থেকে মাসুমা মুফতিকে অব্যাহতি দেয়া হলেও গুরুত্বপূর্ণ ওই তথ্য গোপন করেন চিফ ফ্লাইট পার্সার এবং ফ্লাইট সার্ভিসের ডিজিএম নুরুজ্জামান রঞ্জু। ফলে পরদিনই মাসুমা মুফতি কেবিন ক্রু হিসেবে সিঙ্গাপুরের একটি ফ্লাইটে দায়িত্ব পালন করেন। বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আসার পর সোমবার তাদের দু'জনকেই আনুষ্ঠানিকভাবে গ্রাউন্ডেড এবং শোকজ করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের  মহাব্যবস্থাপক ( জনসংযোগ) শাকিল মিরাজ।

শাকিল মেরাজ জানান, বিমান যাত্রীদের নিরাপত্তা বিবেচনায় প্রতিটি ফ্লাইটের আগে ডোপ টেস্ট করা হয়ে থাকে। প্রধানমন্ত্রীর লন্ডন ফ্লাইটের দিনও একই নিয়ম অনুসরণ করা হয়। এসময় মাসুমা মুফতির মাদক গ্রহণের বিষয়টি ধরা পড়ে। কিন্তু মাসুমার মাদক সেবনের বিষয়টি সংশ্লিস্ট দপ্তরকে জানাননি নুরুজ্জামান রঞ্জু।

এ তথ্য গোপন করায় রঞ্জুকে গ্রাউন্ডেড করেছে বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। এ ঘটনায় বিভাগীয় তদন্ত শুরু হয়েছে বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, জাতিসংঘের ৭৩তম সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে শুক্রবার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে লন্ডন যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখান থেকে ব্রিটিশ এয়া্রওয়েজের একটি বিমানযোগে প্রধানমন্ত্রী তাঁর সফরসঙ্গীদের নিয়ে নিউজার্সির নিউ ইয়র্ক লিবার্টি ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ১০ মিনিটে পৌঁছান।