DBC News
'আগ্রহী প্রতিষ্ঠানগুলোকেই এমপিওভুক্ত করা হবে'

'আগ্রহী প্রতিষ্ঠানগুলোকেই এমপিওভুক্ত করা হবে'

আগ্রহী সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকেই এমপিওভুক্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। বুধবার দুপুরে, সচিবালয়ে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের সঙ্গে বৈঠক শেষে এ কথা বলেন তিনি।

এ সময় বেতনভাতা বৃদ্ধি, উৎসবভাতা, কল্যাণ তহবিলের জটিলতা দূর করার কাজটি সরকারের বিবেচনায় আছে এবং পর্যায়ক্রমে সেগুলো বাস্তবায়ন করা হবে বলেও জানান তিনি। 

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, 'যাচাই বাছাই করে যেসব প্রতিষ্ঠানের সব কিছু সঠিক রয়েছে তাদেরকেই আমরা এমপিওভুক্ত করবো। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় মাঠ পর্যায়ে যাচাই বাছাই চলছে। এই যাচাই বাছাই প্রক্রিয়া ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।'

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, 'এবার নতুন প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত করা হবে। এরইমধ্যে ‘নন এমপিও’ প্রতিষ্ঠানের নিকট থেকে অনলাইনে আবেদন আহবান করা হয়েছে। স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা-কারিগরি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে ৯ হাজার ৪শ ৯৮টি আবেদন অনলাইনে জমা পড়েছে। এতোগুলো প্রতিষ্ঠানের আবেদন যাচাই বাচাই করা অনেক সময়ের ব্যাপার।'


প্রসঙ্গত, নিজেদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি করার দাবিতে প্রায় গতবছর শুরু হয় শিক্ষকদের আন্দোলন। দাবি আদায়ে প্রায় পাঁচ মাস আন্দোলন করেন বেসরকারী স্কুলের শিক্ষকরা। এ সময় প্রচন্ড শীত উপেক্ষো করেও তারা অনশন কর্মসূচি অব্যাহত রাখেন। পরে, প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাসে অনশন ভঙ্গ করে নিজ নিজ কর্মস্থলে ফিরে যান শিক্ষকরা। ২০১৮-১৯ বাজেটে এমপিওভুক্তির বিষয়ে সুস্পষ্ট কিছু না থাকায় শিক্ষকরা আবার আন্দোলনে নামেন।

এর পর চলতি বছরের ১১ই জুন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সচিবালয়ে এক অনুষ্ঠানে জানান, 'বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হবে। বাজেটে উল্লেখ না থাকলেও, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জন্য যে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে, সেটি ফয়সালা করে এমপিওভুক্ত করা হবে।'


পরে, শিক্ষা মন্ত্রণালয় ১২ই জুন এমপিও নীতিমালা ২০১৮'র ঘোষণা দেয়। এ নীতিমালা নিয়েও আন্দোলনরত শিক্ষকরা আপত্তি জানান।

 

আরও পড়ুন

৩ হাজার স্কুলে শিক্ষিত হচ্ছে সাড়ে ৩ লাখ রোহিঙ্গা শিশু

দেশি বিদেশি বিভিন্ন দাতা সংস্থার সহযোগিতায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে বসানো হয়েছে প্রায় ৩ হাজার স্কুল। স্থানীয় শিক্ষকদের অন্তর্ভুক্ত করে ইংরেজি ও বার্মিজ ভাষায় জাতী...

ঋণ খেলাপিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি

খেলাপি ঋণের ব্যাধি থেকে মুক্ত হতে বিচারের সংস্কৃতি ফিরিয়ে আনার তাগিদ দিয়েছেন ব্যাংকাররা। তারা মনে করেন আর্থিকখাতের দুষ্কৃতিকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হলে কমে...

৩ হাজার স্কুলে শিক্ষিত হচ্ছে সাড়ে ৩ লাখ রোহিঙ্গা শিশু

দেশি বিদেশি বিভিন্ন দাতা সংস্থার সহযোগিতায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে বসানো হয়েছে প্রায় ৩ হাজার স্কুল। স্থানীয় শিক্ষকদের অন্তর্ভুক্ত করে ইংরেজি ও বার্মিজ ভাষায় জাতী...

তিন দশক পর সিনেটে ছাত্র প্রতিনিধি

প্রায় তিন দশক পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট অধিবেশনে যোগ দিচ্ছেন ছাত্রপ্রতিনিধিরা। শ্রেণিকক্ষ ও আবাসন সংকট সমাধান,গবেষণা খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধিসহ বেশকিছু ইস্যু তুলে...