DBC News
দেশের বিভিন্ন স্থানে বজ্রপাতে ১১ জনের মৃত্যু

দেশের বিভিন্ন স্থানে বজ্রপাতে ১১ জনের মৃত্যু

সাতক্ষীরার কালীগঞ্জে দুই স্কুল শিক্ষার্থীসহ দেশের কয়েক জায়গায় বজ্রপাতে ১১ জন মারা গেছেন। বুধবার দেশের বিভিন্নস্থানে এসব ঘটনা ঘটে।  

স্থানীয় সংবাদদাতারা জানান,  সুনামগঞ্জের ছাতক ও সুরমা নদীতে বজ্রপাতে দুইজনের মৃত্যু ঘটে। পুলিশ জানায়, হাওড়ে বজ্রপাতে নিহত ব্যক্তি হৃদয় দাস জয়নগর গ্রামের বাসিন্দা। আর সুরমা নদীতে মারা যান মামুন মিয়া নামে এক পাথর শ্রমিক।  এ সময় আহত হয় এক কিশোর। 

এদিকে, সাতক্ষীরার কালীগঞ্জে বজ্রপাতে দুই স্কুলশিক্ষার্থীর মৃত্যু ঘটে। বাগেরহাটের শরণখোলায় গোয়ালঘরে কাজ করার সময় বজ্রপাতে মারা যায় আরো এক কৃষক। 

এছাড়া দিনাজপুরের সরস্বতীপুর, গাইবান্ধার পলাশবাড়ী, রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি, নেত্রকোণার কলমাকান্দা ও জামালপুর সদরের চরজালাল এলাকায় বজ্রপাতে শিশু ও নারীসহ আরও পাঁচজনের মৃত্যু হয়। 

চলতি বছর বাংলাদেশ বজ্রপাতে মৃত্যুর ঘটনা খুবই বেশি। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এর তথ্যমতে এ বছর মার্চ ও এপ্রিল দুই মাসে বজ্রপাতে সারাদেশে ৭০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এর মধ্যে এপ্রিলের শেষ দুই দিনেই ২৯ জনের মৃত্যু হয়। এছাড়া চলতি বছরের মার্চ মাসে  বাংলাদেশের বিভিন্নস্থানে বজ্রপাতে মোট ১২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়। এছাড়া পুরো এপ্রিলে ৫৮ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়।

এক গবেষণা প্রতিবেদনে জানা যায়, বাংলাদেশে ২০১০ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত বজ্রপাতের ঘটনায় ১৮০০'র বেশি মানুষ মারা গেছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি বজ্রপাত হয় সুনামগঞ্জ এবং মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে। 

এদিকে রাজশাহী বিভাগের সবচেয়ে বেশি বজ্রপাত হয় চাঁপাইনবাবগঞ্জে। আবার  ময়মনসিংহ বিভাগে সবচেয়ে বেশি বজ্রপাত হয় নেত্রকোনায়। এছাড়া ঢাকা বিভাগে সবচেয়ে বেশি বজ্রপাত হয় কিশোরগঞ্জ জেলায়।