DBC News
বাংলাদেশ-ভারত যৌথ রেল ও বিদ্যুৎ প্রকল্পের উদ্বোধন

বাংলাদেশ-ভারত যৌথ রেল ও বিদ্যুৎ প্রকল্পের উদ্বোধন

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে সহযোগিতার অংশ হিসেবে বাংলাদেশের জাতীয় গ্রিডে অারও ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু করতে যাচ্ছে ভারত। পশ্চিমবঙ্গের বহরমপুর গ্রিড থেকে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার আন্তঃবিদ্যুৎ সংযোগ গ্রিডের মাধ্যমে এ বিদ্যুৎ বাংলাদেশে আসবে। 

সোমবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকার গণভবন থেকে এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দিল্লী থেকে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে এ বিদ্যুৎ সরবরাহ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

এসময় পশ্চিম বঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব কলকাতা ও আগরতলা থেকে এ ভিডিও কনফারেন্সিং  এ অংশ নেন।

 উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, '১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারত বাংলাদেশের জনগণকে যেভাবে সহযোগিতা করেছে, তার জন্য আমি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।'

শেখ হাসিনা বলেন, 'বর্তমানে ভারত থেকে ৬৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ পাচ্ছে বাংলাদেশ। নতুন ৫০০ মেগাওয়াট যুক্ত হওয়ার পর ভারত থেকে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ আমদানির পরিমাণ দাঁড়াচ্ছে ১ হাজার ৬৬০ মেগাওয়াটে।'

তিনি বলেন, 'ভারত থেকে আমদানি করা এই বিদ্যুৎ আমাদের দেশের জনগণের কল্যাণ বয়ে আনবে বলেই আমার বিশ্বাস।'

প্রধানমন্ত্রী জানান, 'আমরা এরইমধ্যে ৫৫টি বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করেছি।  এছাড়া দেশের উন্নয়ন কর্মকান্ডকে এগিয়ে নিতে ২০৪১ সালের মধ্যে আরও  ৯ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করার পরিকল্পনা আমাদের রয়েছে। এজন্য ভারতসহ প্রতিবেশী দেশগুলোর সহযোগিতা কামনা করছি।'

পণ্য পরিবহণে ভারত-বাংলাদেশ যে যৌথ রেল লাইন প্রকল্প হাতে নিয়েছে তা বাস্তবায়িত হলে, বাংলাদেশ ও ভারতের জনগণই উপকৃত হবে বলেও মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ভারত থেকে আরও ৩০০০ মেগাওয়াট বিদ্যূৎ আমদানির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী। এ সময় স্থল সীমানা চুক্তি বাস্তবায়ন করায় ভারতের সংসদ সদস্যদের অভিনন্দন জানান শেখ হাসিনা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, 'যখনই ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে উন্নয়ন ও যোগাযোগের কোন বিষয় আলোচনা আসে আমি আশাবাদী হই।' বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের মধ্যে দিয়ে দুই দেশের সম্পর্ক আরও গভীর হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

ওই ভিডিও কনফারেন্সিং এ  ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, 'কমনওয়েলথ, বিমসটেক এবং শান্তি নিকেতনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকে সমন্বিত বিদ্যুৎ সংযোগ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।'

ভারত-বাংলাদেশের সম্পর্ককে 'সোনালী সম্পর্কের প্রতীক' বলেও আখ্যায়িত করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় ভারত সব সময় পাশে থাকবে বলেও জানান নরেন্দ্র মোদি।

এ সময় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় বলেন, 'বাংলাদেশ ভালো থাকলে পশ্চিমবঙ্গসহ পুরো ভারত ভালো থাকে।'

বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে, উদ্বোধনের আনুষ্ঠানিকতা সোমবার বিকেলে হলেও রবিবার মধ্যরাত থেকেই পরীক্ষামূলক বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয়েছে। এ অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভেড়ামারায় নবনির্মিত ৫০০ মেগাওয়াট ক্ষমতার ‘হাই ভোল্টেজ ডিসি ব্যাক টু ব্যাক স্টেশনের দ্বিতীয় পর্যায়েরও উদ্বোধন করেন দুই প্রধানমন্ত্রী।

এছাড়া আখাউড়া-আগরতলা ডুয়েল গেজ রেললাইন প্রকল্পের বাংলাদেশ অংশ এবং মৌলবীবাজারের কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেল সংযোগ পুনঃপ্রকল্পের নির্মাণ কাজেরও উদ্বোধন হয় এ অনুষ্ঠানে। 

পশ্চিমবঙ্গের বহরমপুর থেকে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা হয়ে বাংলাদেশে বিদ্যুৎ আমদানি শুরু হয় ২০১৩ সালের ৫ই অক্টোবর। ওই সঞ্চালন লাইন দিয়ে  ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ পাচ্ছে বাংলাদেশ। এছাড়া ত্রিপুরা থেকে কুমিল্লা হয়ে আসছে আরও ১৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ।

আরও পড়ুন

আলোচিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও সড়ক পরিবহণ আইন সংসদে পাশ

বহুল আলোচিত 'ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল ২০১৮' ও 'সড়ক পরিবহণ আইন' সংসদে পাস হয়েছে আজ বুধবার। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাসে স্বাধীন সাংবাদিকতা ক্ষতিগ্রস্থ হবেনা বলে...

'রোহিঙ্গাদের এদেশে দীর্ঘদিন থাকার সুযোগ নেই'

রোহিঙ্গাদের দীর্ঘমেয়াদে বাংলাদেশে থাকার কোনও সুযোগ নেই। দ্রুততম সময়ের মধ্যে তাদেরকে ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের ওপর চাপ অব্যাহত রাখতে বিশ্বের সমর্থন রয়েছে। বুধবার জা...

নওয়াজ শরিফের কারাদণ্ড স্থগিত

দুর্নীতির মামলায় পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের বিরুদ্ধে কারাদণ্ডাদেশ স্থগিত করে জেল থেকে মুক্তির আদেশ দিয়েছেন ইসলামাবাদ হাই কোর্ট। এই মামলায় নওয়া...

দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে ইয়েমেনের ৫২ লাখ শিশু

ইয়েমেন যুদ্ধের কারণে নতুন করে প্রায় ১০ লাখ শিশু দুর্ভিক্ষের ঝুঁকির মুখে রয়েছে বলে জানিয়েছে, সেভ দ্য চিলড্রেন। সব মিলিয়ে দেশটিতে বর্তমানে মোট ৫২ লাখ শিশু দুর্ভিক...