DBC News
মঙ্গলবারের মধ্যে শহিদুলের জামিন আবেদন নিষ্পত্তির নির্দেশ

মঙ্গলবারের মধ্যে শহিদুলের জামিন আবেদন নিষ্পত্তির নির্দেশ

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলায় আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের জামিন আবেদন মঙ্গলবারের মধ্যে শেষ করতে বিচারিক আদালতকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এ সংক্রান্ত এক আবেদনের শুনানি শেষে বিচারপতি মো. রেজাউল হক ও বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ নির্দেশ দেন।

আজ সোমবার হাই কোর্টে শহিদুলের আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার সারা হোসেন ও জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

শুনানি শেষে সারা হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, 'আগামীকাল (মঙ্গলবার) দায়রা জজ আদালতে জামিন শুনানির তারিখ আছে। হাই কোর্ট বলেছে, কালই যেন বিষয়টির নিষ্পত্তি করা হয়।'

গত ৪ঠা সেপ্টেম্বর বিচারপতি মোহাম্মদ রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি খন্দকার দিলীরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ শহিদুল আলমের জামিন আবেদন শুনতে বিব্রতবোধ করেন। ওই দিন শুনানির সময় আদালতে শহিদুল আলমের আইনজীবী ছিলেন ব্যারিস্টার সারা হোসেন ও জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ, অমিত তালুকদার ও অরবিন্দ কুমার রায়।

এরপর নিয়ম অনুসারে মামলাটি প্রধান বিচারপতির কাছে চলে যায়। পরে প্রধান বিচারপতি আবেদনটির শুনানির জন্য অন্য একটি বেঞ্চ গঠন করে দেন।

প্রসঙ্গত, নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদৈর আন্দোলনের মধ্যে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে গত ৫ই আগস্ট রাতে রাজধানীর দৃক গ্যালারি ও পাঠশালা সাউথ এশিয়ান মিডিয়া ইনস্টিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা শহিদুলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। 

পরে 'উসকানিমূলক ও মিথ্যা' অপপ্রচারের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে এ মামলা করে পুলিশ। ঢাকার হাকিম আদালতে শহিদুলের জামিন আবেদন নাকচ করে দিলে তার আইনজীবীরা ১৪ আগস্ট মহানগর দায়রা জজ আদালতে যান। বিচারক আবেদনটি ১১ই সেপ্টেম্বর শুনানির জন্য রাখলে তারা শুনানির তারিখ এগিয়ে আনার জন্য আরেকটি আবেদন করেন। 

কিন্তু বিচারক তা গ্রহণ না করলে ২৬শে আগস্ট শহিদুল আলমের অন্তবর্তীকালীন জামিন চেয়ে ওই আদালতেই ফের আবেদন করা হয়। আদালত তা শুনানির জন্য গ্রহণ না করায় গত ২৮শে আগস্ট শহিদুলের জামিন আবেদন নিয়ে তার আইনজীবীরা হাইকোর্টে আসেন।