DBC News
সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পেতে ব্যস্ত সম্ভাব্য প্রার্থীরা

সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পেতে ব্যস্ত সম্ভাব্য প্রার্থীরা

সিলেট-২ আসনে দল থেকে মনোনয়ন পেতে ব্যস্ত আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থীরা। যদিও জোটের শরীকদের অংশীদারিত্বের দাবিতে এখন স্বস্তিতে নেই জোট-মহাজোটের নেতৃত্বে থাকা কোনো দলই।

বিশ্বনাথ ও ওসমানীনগর উপজেলা নিয়ে গঠিত সিলেট-২ আসন। একসময় আওয়ামী লীগের দূর্গ হিসেবে পরিচিতি থাকলেও সেখানে হানা দিয়ে শক্ত অবস্থান তৈরি করেছিলেন বিএনপির সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ‘নিখোঁজ’ এম ইলিয়াস আলী।

নবম সংসদ নির্বাচনে ইলিয়াস আলীকে হারিয়ে আসনটি পুনরুদ্ধার করেন আওয়ামী লীগের শফিকুর রহমান চৌধুরী। তবে, গত নির্বাচনে জাতীয় পার্টিকে আসনটি ছেড়ে দিতে হয়। এবার আর ছাড় দিতে রাজি নন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা।

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়া প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে জাতীয়পার্টির হয়ে লাঙ্গল প্রতীকে নির্বাচনে অংশ নেন। ৪৮ হাজার ১৫৭ ভোট পেয়েছিলেন ইয়াহইয়া। তার বিপরীতে স্বতন্ত্র প্রার্থী নেতা মুহিবুর রহমান আনারস প্রতীক নিয়ে পান ১৭ হাজার ৩৮৯ ভোট।

ইলিয়াস আলী নিখোঁজ হওয়ার পর স্থানীয় বিএনপির হাল ধরেছেন তার স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনা। তবে, ২০ দলীয় জোটের শরীক খেলাফত মজলিসের প্রার্থীও মাঠে জোরেশোরেই কাজ করছে বলে জানান দলটির যুগ্ম মহাসচিব মোহাম্মদ মুনতাসির আলী।

এ আসনে বিএনপির একমাত্র প্রার্থী তাহসিনা রুশদীর লুনার জন্য মাঠে ব্যাপকভাবে কাজ করছেন বিএনপি, স্বেচ্ছাসেবকদল, যুবদল, ছাত্রদলের সর্বস্তরের নেতাকর্মী। দলে বিরোধ থাকলেও ইলিয়াস-লুনার প্রশ্নে এখানে বিএনপি ঘরানার সবাই একজোট। এ কারণে এখানে লুনার প্রার্থীতাও শতভাগ নিশ্চিত। তিনি নিজেও রাজনীতির মাঠে পুরো সরব রয়েছেন। 

জাতীয়পার্টির চেয়ারম্যান এবার নতুন জোটের ঘোষণার পাশাপাশি সারাদেশের তিনশ সংসদীয় আসনে একক নির্বাচনের চিন্তাভাবনা করছেন। সেই হিসেবে মহাজোটের প্রার্থী না হলেও বর্তমান সংসদ সদস্য ইয়াহইয়া চৌধুরীর প্রার্থীতাও নিশ্চিত। একক নির্বাচনের জন্য জাতীয় পার্টি তৈরি বলে জানান বর্তমান সংসদ সদস্য ইয়াহিয়া চৌধুরী এহিয়া।

এ আসনে আওয়ামী লীগ চারবার, তিনবার বিএনপি ও তিনবার জাতীয় পার্টির প্রার্থী বিজয়ী হন।