DBC News
'প্রতিহিংসা চরিতার্থেই আদালত স্থানান্তর'

'প্রতিহিংসা চরিতার্থেই আদালত স্থানান্তর'

প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতেই জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় আদালত স্থানান্তর করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

বৃহস্পতিবার সকালে, রাজধানীর নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন রুহুল কবির রিজভী।

এ সময় বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব আরও বলেন, 'খালেদা জিয়াকে কারাগারে আটক করে গণতন্ত্রকেই বন্দি করে রাখা হয়েছে। দিনের পর দিন তাকে কারাগারে আটক রেখে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটিয়ে তাকে বিপর্যস্ত করা হচ্ছে।'

রিজভী বলেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা এতটা খারাপ ছিলো যে তাকে হুইল চেয়ারে করে আদালতে আনা হয়। তার হাত-পা নাড়তে কষ্ট হচ্ছিলো। বারবার দাবি করার পরও সরকার তার চিকিৎসায় অবহেলা করছে বলেও অভিযোগ করেন রিজভী। চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানো হয়নি বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

খালেদা জিয়ার ওপর সরকারের এই অসদাচরণের নিন্দা জানিয়ে রিজভী বলেন, তার ওপর যে অবিচার চলছে তা মানবাধিকারের লঙ্ঘন। কারাগারে খালেদা জিয়াকে যে কক্ষে আটক করে রাখা হয়েছে তা বসবাসের অনুপযুক্ত। এই বেআইনি এ অসদাচরণের জবাব জনগণের কাছে দিতে হবে বলেও মন্তব্য করেন রিজভী।

রিজভী বলেন, বিগত কয়েক বছরে আওয়ামী চেতনায় জারিত করে আইনশৃং্খলা বাহিনীকে গড়ে তোলা হয়েছে। শেখ হাসিনা আসন্ন নির্বাচন 'ম্যানেজ' করার জন্য সেই বাহিনীকে নিষ্ঠার সাথে কাজে লাগাচ্ছেন। শেখ হাসিনার অধীনে যে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে সেই নির্বাচনগুলো 'জালিয়াতি নির্বাচন' হিসেবেই বিশ্বব্যাপী পরিচিত লাভ করেছে। 

বর্তমান সরকার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন দিতে চায়না বলেই একতরফা নির্বাচনে ব্যবস্থা করছে। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে বর্তমান সরকারের লজ্জা জনক পরাজয় হবে।

রিজভী অভিযোগ করে বলেন, ঈদের কয়েকদিন আগে থেকে এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্য মতে সারাদেশে বিএনপির ১৫ শতাধিক নেতাকর্মী গেপ্তার হয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে ১২ শতাধিক  মামলা  দেয়া হয়েছে।