DBC News
মিয়ানমারে দণ্ডপ্রাপ্ত সাংবাদিকদের মুক্তি দাবি মাইক পেন্সের

মিয়ানমারে দণ্ডপ্রাপ্ত সাংবাদিকদের মুক্তি দাবি মাইক পেন্সের

মিয়ানমারে দণ্ডপ্রাপ্ত রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স। মঙ্গলবার এক টুইটে এ আহ্বান জানান তিনি।

মাইক পেন্স বলেন, মিয়ানমারে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর দেশটির সেনাবাহিনীর নিপীড়নের ঘটনায় সংবাদ সংগ্রহের জন্য রয়টার্স সাংবাদিকদের ৭ বছর কারাদণ্ডের রায় গভীরভাবে উদ্বেগজনক। রাষ্ট্রীয় মদদে মানবাধিকার লঙ্ঘন ও নির্বিচারে হত্যার ঘটনা উন্মোচনে ওয়া লোন এবং কিয়াও সোয়ে ও’কে বন্দিত্ব বরণ নয় বরং প্রশংসিত করা উচিত। ধর্ম ও সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা একটি শক্তিশালী গণতন্ত্রের জন্য অপরিহার্য। তাদের অবিলম্বে মুক্তি দিতে আমরা মিয়ানমার সরকারের প্রতি আহ্বান জানাই।

এর আগে, জাতিসংঘের নবনিযুক্ত মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনার মিশেল ব্যাচেলেটও মিয়ানমারে দণ্ডপ্রাপ্ত রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে মুক্তির আহ্বান জানান।

এদিকে, মিয়ানমারে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর গণহত্যা পরিচালনাকারী সেনা সদস্যদের বিচারের মুখোমুখি করতে চাপ দেবে যুক্তরাজ্য। মঙ্গলবার হাউস অব কমন্সে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট এ কথা বলেন।

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নিপীড়নের তথ্য সংগ্রহের সময় গ্রেফতার রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে গত সোমবার সাত বছরের কারাদণ্ড দেয় দেশটির আদালত। দুই সাংবাদিককে মুক্তি দিতে আন্তর্জাতিক আহ্বানের মধ্যেই ইয়াঙ্গুনের জেলা জজ আদালত সোমবার এ রায় ঘোষণা করে বলে রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়।

গত বছরের আগস্টে মিয়ানমারের ইন-দীন গ্রামে ১০ রোহিঙ্গাকে হত্যার ঘটনা নিয়ে তারা তথ্য সংগ্রহ করছিলেন। এ বিষয়ে ইয়াঙ্গুনের একটি রেস্টুরেন্টে গত ১২ ডিসেম্বর দুই পুলিশ কর্মকর্তার সাথে দেখা করতে গেলে, তাদের হাতে কিছু মোড়ানো কাগজ ধরিয়ে দেয়া হয়। এরপর গ্রেফতার করে চোখ বেঁধে গাড়িতে করে নিয়ে যান পুলিশ সদস্যরা।