DBC News
'প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা বেড়েছে'

'প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা বেড়েছে'

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। এমন তথ্য জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিকান ইনস্টিটিউট-আইআরআই।  

আইআরআই-এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের ৬৬ শতাংশ নাগরিক প্রধানমন্ত্রীর প্রতি সমর্থন প্রকাশ করেন। পাশাপাশি ৬৪ শতাংশ নাগরিক আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন। জরিপে বলা হয়, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্থনীতি আশানুরূপভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। ৬২ শতাংশ নাগরিক মনে করেন, অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রায় দেশ সঠিক পথে আছে। এছাড়া অর্থনৈতিক উন্নয়নে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন ৬৯ ভাগ নাগরিক। 

আন্তর্জাতিক গবেষণা সংস্থা 'সেন্টার ফর ইনসাইট অ্যান্ড সার্ভে' আইআরআই-এর হয়ে ওই প্রতিবেদনটি তৈরি করে। এতে আরও বলা হয়, দেশের বর্তমান গণতান্ত্রিক আবহ নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন ৫১ ভাগ নাগরিক। পার্লামেন্টের কার্যক্রমের ওপর তাদের আস্থা রয়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। চলতি বছরের এপ্রিলের ১০ তারিখ থেকে ২১ মে পর্যন্ত ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিকান ইনস্টিটিউট এই জরিপ চালায়।

গবেষণা প্রতিবেদনের নোটে বলা হয়, জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে বর্তমান সরকার । আর সে কারণে ৬৮ শতাংশ নাগরিক জননিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে সন্তুষ্ট। এর মধ্যে ৫৭ শতাংশ নাগরিক মনে করেন, সামনে জননিরাপত্তা ব্যবস্থার আরও উন্নতি হবে।

জরিপের ফলাফলে বলা হয়, সরকারি বিভিন্ন সেবা প্রদানের ক্ষেত্রেও জনসন্তুষ্টির পরিমাণ বেড়েছে। জনস্বাস্থ্য খাতে সরকারি সেবায় সন্তুষ্ট ৬৭ শতাংশ মানুষ এবং বিদ্যুৎসরবরাহ নিশ্চিত করার বিষয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন ৬৪ শতাংশ নাগরিক। এ ছাড়া সড়ক ও ব্রিজের উন্নয়নের প্রভাব নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেণ ৬১ শতাংশ নাগরিক। 

দেশের বর্তমান গণতান্ত্রিক আবহ নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন ৫১ শতাংশ নাগরিক। পার্লামেন্টের কার্যক্রমের ওপর তাদের আস্থা রয়েছে বলেও প্রতিবেদনে জানানো হয়। নাগরিকদের কাছে ভোটাধিকার প্রয়োগের বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে ৮১ শতাংশ নাগরিক জানান, আগামী নির্বাচনে তারা ভোট প্রদান করবেন। যার মধ্যে ৫১ শতাংশ দেশের বর্তমান গণতান্ত্রিক আবহের পক্ষে মত প্রদান করেন। 

চলতি বছরের ১০ এপ্রিল থেকে ২১ মে পর্যন্ত এই পরিসংখান চালানো হয়। সেখানে দেশের মোট জনসংখ্যাকে কিছু স্তরে ভাগ করে কয়েকটি পর্বে বাছাই করা হয় ( মাল্টি স্টেজ স্ট্রেটিফাইড প্রবাবিলিটি স্যম্পল) এবং তাদের সাথে সরাসরি অথবা বাসায় (ইনপারসন/ইন হোম) ফোন করে তথ্য সংগ্রহ করা হয়। গবেষণার জন্য স্তরগুলো দেশের বিভাগ ও জেলা এবং গ্রাম ও শহর হিসেব ভাগ করে নেওয়া হয়। এই গবেষণার জন্য পাঁচ হাজার মানুষের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়, যাদের বয়স ১৮ বা তার বেশি এবং আগামী নির্বাচনে ভোট দেয়ার অধিকার রাখেন। 

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক গবেষণা সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিক ইনস্টিটিউটের( আইআরআই) গবেষণা প্রতিবেদনেও কাছাকাছি ফল পাওয়া যায়। ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে প্রকাশিত গবেষণা সংস্থাটির প্রতিবেদনে বলা হয়, ৬৪ শতাংশ নাগরিক মনে করেন, দেশ সঠিক পথে এগিয়ে যাচ্ছে।  

২০১৫ সালে ব্রিটিশ কাউন্সিল, অ্যাকশন এইড বাংলাদেশ এবং ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশের( ইউল্যাব) যৌথ আয়োজনে চালানো পরিসংখ্যানে একই কথা বলা হয়।

প্রতিবেদনে জানানো হয়, ৭৫ শতাংশ তরুণের মতে, বাংলাদেশ আগামী ১৫ বছরে আরও উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে এবং তাদের মধ্যে ৬০ শতাংশ তরুণ মনে করেন, দেশ সঠিক পথে এগিয়ে যাচ্ছে। এই গবেষণা প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় ও বিশ্বস্ত নেতা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে ৭২ দশমিক ৩ শতাংশ নাগরিক দেশ পরিচালনায় শেখ হাসিনার পক্ষে 'ভাল মত' প্রকাশ করেন। এই প্রতিবেদনই ২৬ দশমিক ৬ শতাংশ নাগরিক দেশ পরিচালনায় খালেদা জিয়ার পক্ষে 'ভাল মত' প্রকাশ করেন।

২০১৫ সালে আইআরআই প্রকাশিত অপর এক জরিপে বলা হয়, ৬৭ শতাংশ নাগরিক দেশ পরিচালনায় শেখ হাসিনার নেতৃত্বের ওপর আস্থা রাখেনা।

আরও পড়ুন

অসুস্থতার কারণে সংসদ থেকে আশরাফের ছুটি

অসুস্থতার কারণে জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামকে ১৮ই সেপ্টেম্বর থেকে ৯০ কার্যদিবসের ছুটি দেয়া হয়েছে। এর আগে তার পক্ষে ছুটির আবেদন পাঠ করেন জাতীয় সংসদের স্প...

বাংলাদেশ-ভারত উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ইন্দো-বাংলা ফ্রেন্ডশিপ পাইপলাইন ও ঢাকা-টঙ্গী-জয়দেবপুরের মধ্যে রেললাইন প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভা...

২১ আগস্ট:  হুজি- তারেকের দফায় দফায় বৈঠক

পঁচাত্তর পরবর্তী সময়ে ঘৃন্যতম রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড ঘটে ২০০৪ সালের একুশে আগস্ট। আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূন্য করতে শেখ হাসিনাসহ দলের শীর্ষ নেতাদের হত্যা পরিকল্পনা করা...

একনেকে ইভিএম ক্রয় সংক্রান্ত প্রকল্পের অনুমোদন

প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন, ইভিএম ক্রয়, সংরক্ষণ ও ব্যবহার সংক্রান্ত প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি, এ...