DBC News
হেলমেট না থাকলে তেল নয় মোটরসাইকেলে; ডিএমপি কমিশনার

হেলমেট না থাকলে তেল নয় মোটরসাইকেলে; ডিএমপি কমিশনার

কোনো মোটরসাইকেল চালকের হেলমেট না থাকলে তার গাড়িতে জ্বালানি সরবরাহ না করতে পেট্রোলপাম্প কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানিয়েছেন, ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া।

মঙ্গলবার সকালে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে সেপ্টেম্বর জুড়ে ট্রাফিক ব্যবস্থা নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পেট্রোলপাম্প সংশ্লিষ্টদের প্রতি তিনি এ আহ্বান জানান। এ সময় চালকরা নিয়ম না মানলে, তাদের রুট পারমিট বাতিল করা হবে বলেও স্পষ্ট জানিয়ে দেন তিনি।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, 'এরইমধ্যে প্রত্যেক পেট্রোল পাম্পকে অনুরোধ করা হয়েছে যে হেলমেট না থাকলে কোনো মটোরসাইকেল চালককেই যেন জ্বালানি সরবরাহ করা না হয়।  এরই মধ্যে নিয়মটি ঢাকা মহানগরে চালু হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।'

জনগণ আইন না মানায় সড়কে শৃঙ্খলা ফিরছে না- বলেও মনে করেন, ডিএমপি কমিশনার। 

এছাড়া, চুক্তির বদলে বাস চালকদের নির্দিষ্ট বেতনের ভিত্তিতে নিয়োগের জন্য মালিকদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

পুলিশ কমিশনার বলেন,  ‌'ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে ঢাকা মহানগরীতে কোন লেগুনা চালাতে দেয়া হবে না।  সোজা কথায় মহানগরীতে কোন ধরনের লেগুনা বা হিউম্যান হলার চলার কথা নয়। আমরা এটা সুনিশ্চিত করতে চাই যে,  ঢাকা মহানগরীতে কোনভাবেই লেগুনা চলবে না। তবে লেগুনা শুধুমাত্র শহরের বাইরে চলবে । যেখানে তাদের রুট পারমিট দেয়া হয়েছে।' 

আছাদুজ্জামান মিয়া আরও বলেন, 'আমাদের সবার মধ্যেই আইন না মানার প্রবণতা রয়েছে। আমরা প্রত্যেকেই যদি আইন না মানি তাহলে পুলিশের পক্ষে বা অন্য কারও পক্ষে এই ট্রাফিকের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা অসম্ভব হয়ে পড়বে।'

তিনি বলেন, 'যদি আমরা সবাই আইন মানি এবং অন্যদের যদি আইন মানতে উদ্বুদ্ধ করি তাহলেই একমাত্র এই সড়কে নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব।'  

ডিএমপি কমিশনার বলেন, 'আমরা বাস থামানোর জন্য ১২১টি স্থান নির্ধারণ করেছি। এগুলোতে বোর্ড লাগানো হচ্ছে। এসব জায়গার বাইরে কেউ বাস থামাতে পারবে না।' বাস স্টপেজ ছাড়া কোথাও বাসের দরজা খুলবে না, বন্ধ থাকবে, একইসঙ্গে যাত্রীরাও বাস স্টপেজ ছাড়া অন্য কোথাও নামতে পারবেন না বলেও জানান তিনি।