DBC News
অভিন্ন কলরেটে খরচ বাড়লো গ্রাহকদের

অভিন্ন কলরেটে খরচ বাড়লো গ্রাহকদের

মোবাইল ফোনের সর্বনিম্ন কলরেট বেড়ে যাওয়ায় দৈনন্দিন খরচে এখন বাড়তি পয়সা গুণতে হচ্ছে গ্রাহকদের। নতুন এই অভিন্ন কলরেটের কোনো সুফলও তারা পাচ্ছে না। তবে গড় হিসাবে খরচ একেবারেই বাড়েনি এমন দাবি টেলিকম অপারেটরদের। বিশ্লেষকরা বলছেন, বিভ্রান্তি এড়াতে খরচ কত দাঁড়লো সে হিসাব গ্রাহকের সামনে স্পষ্ট করা উচিত।

দেশের সব মোবাইল ফোন নম্বরে এখন একই কলরেট। সর্বনিম্ন ৪৫ পয়সা থেকে কলরেট শুরু হয়ে প্রতি মিনিট সর্বোচ্চ ২ টাকা। অথচ এর আগে একই অপারেটরে অননেটে সর্বনিম্ন খরচ ছিলো মিনিট প্রতি ২৫ পয়সা। হঠাৎ করেই কলরেট বেড়ে যাওয়ায় অসন্তুষ্ট গ্রাহকরা।

গ্রাহকরা জানান, আগে যেখানে প্রতি মাসে ৫শ টাকা খরচ হত সেখানে এখন ৭শ থেকে ৮শ টাকা খরচ হচ্ছে। অনেকেই জানান এই সময়ে এসে যদি দেড় টাকা থেকে দুই টাকা কলরেটে কথা বলতে হয় সেটা আমদের জন্য লজ্জার বিষয়।

দৈনন্দিন যোগাযোগ রক্ষায় যোগ হয়েছে অতিরিক্ত খরচ। ফোনে কথা বলাও কমিয়েছেন অনেকে। 

তবে গ্রাহক পর্যায়ে খরচ বেড়েছে সেটি মানতে নারাজ টেলিকম অপারেটররা। অননেট আর অফনেট কলের হিসাব গড় করলে খরচ আগের মতই থাকছে বলে দাবি অপারেটরদের।

টেলিকম অপারেটর রবি'র হেড অব রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স শাহেদ আলম বলেন, 'মানুষের ধারণা হচ্ছে তারা আগে ২৫ পয়সা কলরেটে কথা বলত কিন্তু এটা ভুল ধারণা। আগে গড় রেট ৪৯ পয়সা পর্যন্ত ছিলো সেক্ষেত্রে অফনেট কলরেট ছিলো ১ টাকা ৪৯ পয়সা। অননেট কলরেট বেড়েছে ২০ শতাংশ কিন্তু অফনেট কলরেট কমেছে ৮০ শতাংশ। বর্তমানে অফনেট এবং অননেট কলের গড় হিসাব করলে দেখা যাচ্ছে গ্রাহকের খরচ কমেছে।'

এখন নতুন কলরেটে খরচ কত দাঁড়ালো সেই বিভ্রান্তি দূর করতে সব অপারেটরের কল ফ্রিকোয়েন্সি হিসাব করে গ্রাহকের কাছে খরচ স্পষ্ট করার পরামর্শ বিশ্লেষকদের।

টেলিকম বিশেষজ্ঞ ড. রোকনুজ্জামান বলেন, 'গ্রাহকের পক্ষ থেকে অভিযোগ আছে খরচ বেড়ে যাচ্ছে। কিন্তু অপারেটর এবং রেগুলেটরি প্রতিষ্ঠান বলছে খরচ কমে আসবে। এই দুইটা জায়গাকে ঠিকভাবে বুঝতে হলে ভোক্তাদের কলের ফিকোয়েন্সিটা হিসাব করতে হবে সে অননেটে কত কল করে এবং অফনেটে কত কল করে তাv হিসাব করতে হবে। রেগুলেটরি প্রতিষ্ঠানকে অনুরোধ জানিয়ে বলেন, বিস্তারিত ডাটাগুলো বিশ্লেষণ করে মিডিয়ার মাধ্যমে গ্রাহকদের কাছে তুলে ধরতে হবে।'

অভিন্ন কলরেটে টেলিকম অপারেটরদের প্রতিযোগিতা আরও বাড়াবে। এতে গ্রাহক পর্যায়ে সুফল পাওয়ার সম্ভাবনাও দেখছেন বিশ্লেষকরা।

আরও পড়ুন

আলোচিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও সড়ক পরিবহণ আইন সংসদে পাশ

বহুল আলোচিত 'ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল ২০১৮' ও 'সড়ক পরিবহণ আইন' সংসদে পাস হয়েছে আজ বুধবার। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাসে স্বাধীন সাংবাদিকতা ক্ষতিগ্রস্থ হবেনা বলে...

'রোহিঙ্গাদের এদেশে দীর্ঘদিন থাকার সুযোগ নেই'

রোহিঙ্গাদের দীর্ঘমেয়াদে বাংলাদেশে থাকার কোনও সুযোগ নেই। দ্রুততম সময়ের মধ্যে তাদেরকে ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের ওপর চাপ অব্যাহত রাখতে বিশ্বের সমর্থন রয়েছে। বুধবার জা...

‘মোবাইল ফোন নম্বর একই থাকলেও, বদলে যাচ্ছে অপারেটর’ 

মোবাইল ফোনের নম্বর একই থাকবে, বদলে যাবে অপারেটর।  আগামী মাসের শুরুতেই চালু হচ্ছে মোবাইল নম্বর পোর্টেবেলিটি বা এমএনপি নামের এই সেবা।  নিজেদের সম্পূর্ণ...

নতুন শিল্পনগরীর স্থান চূড়ান্ত এ মাসেই

নতুন দুটি চামড়া শিল্পনগরীর জন্য চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে প্রাথমিকভাবে ৬টি জায়গা বাছাই করেছে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন, বিসিক।  এ মাসের মধ্যেই ত...