DBC News
পাবনায় সাংবাদিক হত্যায় গ্রেপ্তার ১

পাবনায় সাংবাদিক হত্যায় গ্রেপ্তার ১

পাবনায় সাংবাদিক সুবর্ণা আক্তার নদী হত্যা মামলায় প্রধান আসামি নদীর সাবেক শ্বশুর শিল্পপতি আবুল হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 

এর আগে, বুধবার দুপুরে সুর্বণার মা মর্জিনা বেগম বাদি হয়ে আবুল হোসেন, রাজিব হোসেনসহ আরও ৫/৬ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা  করেন।

গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে পাবনা শহরের রাধানগরের মজুমদার পাড়া এলাকায় আনন্দ টিভির পাবনা জেলা প্রতিনিধি সুবর্ণা নদীকে কুপিয়ে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। সুবর্ণা বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আনন্দ টিভি এবং দৈনিক জাগ্রত বাংলা পত্রিকার পাবনা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতেন।

নিহত সাংবাদিকের স্বজন ও প্রতিবেশীরা জানান, গতকাল মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে কাজ শেষ করে বাড়ি ফিরছিলেন সুবর্ণা নদী। বাড়ির কাছে পৌঁছালে তিন-চারজন মিলে তাকে এলোপাতারি কুপিয়ে পালিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাসার সামনে সুবর্ণার মাথায় ও পেটে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে দুর্বৃত্তরা। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধারের জন্য এগিয়ে গেলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। মুমূর্ষু অবস্থায় হাসপাতালে নেয়ার পরে অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরণে মারা যান সুবর্ণা।

কিছুদিন আগেই স্বামীর সঙ্গে সুবর্ণার বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। এ হত্যায় তার সাবেক স্বামী রাজীব জড়িত রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন, সুবর্ণার পরিবার।

তাৎক্ষণিকভাবে সুবর্ণা নদী হত্যার কারণ জানা যায়নি। সুবর্ণার মা মর্জিনা বেগম বলেন, 'আহত অবস্থায় সুবর্ণাকে হাসপাতালে নিয়ে যাই। হাসপাতালে নেয়ার সময় সুবর্ণা জানায় সে হামলাকারীদের চিনতে পেরেছে। রাজীব ও তার সহকারি মিলনসহ কয়েকজন তাকে কুপিয়েছে বলেও জানায় সুবণা।' 

সুবর্ণা যে বাড়িতে ভাড়া থাকতেন, সে বাড়ির কেয়ারটেকারকেও সন্দেহ করা হচ্ছে। এরই মধ্যে সুবর্ণার শ্বশুর আবুল হোসেন ও কেয়ারটেকার ইমরানকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। তবে রাজীব পালিয়ে আছে।

পুলিশের বিভিন্ন ইউনিট ঘটনা তদন্তে কাজ করছে বলে জানিয়েছেন, পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস। এ হত্যাকান্ডে এখন পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি বলেও জানান তিনি। তবে খুব শিগগিরই মূল হোতাদের শনাক্ত ও গেপ্তার করার কথা জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস।

নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন

১৩ বছরেও শেষ হয়নি কিবরিয়া হত্যার বিচার

তেরো বছরেও শেষ হয়নি সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএসএম কিবরিয়া হত্যাকান্ডের বিচার। আইনজীবীরা বলছেন, সময়মতো আসামি ও সাক্ষী উপস্থিত না হওয়ায় বিলম্বিত হচ্ছে আলোচিত এই মাম...

চার জেলায় র‌্যাবের সঙ্গে 'গোলাগুলিতে' নিহত ৫

সিলেট ও মুন্সিগঞ্জে র‌্যাব এর সঙ্গে কথিত গোলাগুলিতে দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এদিকে কক্সবাজারের টেকনাফে মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে গোলাগুলিতে দুই মাদক ব্য...

১৩ বছরেও শেষ হয়নি কিবরিয়া হত্যার বিচার

তেরো বছরেও শেষ হয়নি সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএসএম কিবরিয়া হত্যাকান্ডের বিচার। আইনজীবীরা বলছেন, সময়মতো আসামি ও সাক্ষী উপস্থিত না হওয়ায় বিলম্বিত হচ্ছে আলোচিত এই মাম...

চার জেলায় র‌্যাবের সঙ্গে 'গোলাগুলিতে' নিহত ৫

সিলেট ও মুন্সিগঞ্জে র‌্যাব এর সঙ্গে কথিত গোলাগুলিতে দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এদিকে কক্সবাজারের টেকনাফে মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে গোলাগুলিতে দুই মাদক ব্য...