DBC News
চামড়ার বাজারে সবচেয়ে বড় দরপতন

চামড়ার বাজারে সবচেয়ে বড় দরপতন

দেশীয় খামারের গরুতেই মিটছে কোরবানীর চাহিদা কিন্তু এবার বড় দরপতন হয়েছে কাঁচা চামড়ার বাজারে। কারণ হিসেবে আড়ৎদাররা বলছেন, পশু কোরবানি বেশি হওয়া এবং ট্যানারি মালিকরা পাওনা টাকা না দেয়ায় এই দরপতন। তবে বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশন বলছে সরকারের বেঁধে দেওয়া দামেই আড়ৎদাদের কাছ থেকে চামড়া কিনবেন তারা।

ঢাকার পাড়া-মহল্লা থেকে কাঁচা চামড়া সংগ্রহ করে এবার কেনা দামেও বিক্রি করতে পারেননি মৌসুমী ব্যবসায়ীরা। শুধু রাজধানীই নয় সারাদেশের চিত্র একই।

হাজার টাকায় চামড়া কিনে ২শ' থেকে ৩শ' টাকায়ও বিক্রি করতে হয়েছে তাদের। এমন অবস্থায় মৌসুমী ব্যবসায়ীদের মাথায় হাত উঠলেও, পোস্তার আড়ৎদাররা দূষছেন ট্যানারি মালিকদের।

কাঁচা চামড়ার আড়ৎদার সামির উদ্দিন বলেন, 'যারা চামড়ার ব্যবসার সঙ্গে জড়িত তারাই চামড়া ক্রয় করবে। তাদের হাতে যদি টাকাই না থাকে তাহলে কি দিয়ে ক্রয় করবে!'

আড়ৎদারের সঙ্গে সুর মেলালেন হাইড অ্যান্ড স্কিন মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনও। পশু কোরবানি বেশি হওয়ার আর আন্তর্জাতিক বাজারে দেশি চামড়ার চাহিদা কমায় এই দরপতন হযেছে বলে জানালেন ওই অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব টিপু সুলতান। তিনি বলেন, 'টাকার কমতি আর চামড়ার ওভারফ্লো- এই দুইটাই রিয়েকশন করেছে।'  

তবে আড়ৎদাররা যত কম দামেই চামড়া কিনুক না কেন, সরকারের বেঁধে দেয়া দামেই এবার তাদের কাছ থেকে কাঁচা চামড়া কেনার আশ্বাস বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের।

এই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শাহীন আহমেদ বলেন, 'আমাদের বেঁধে দেয়া দামের ভেতরেই চামড়া ক্রয় করতে হবে। যারা যেখান থেকে চামড়া কিনছেন তারা ভালোভাবে লবন দিয়ে প্রিজারভেশন করবেন। হতাশ হওয়ার কিছু নেই।'  

আশ্বাস অনুযায়ী ট্যানারি মালিকরা আড়ৎদারদের কাছ থেকে যদি চামড়া কিনেও, তবুও মৌসুমী চামড়া ব্যবসায়ীদের লোকসান পোষাবে কি না সে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।