DBC News
চামড়ার দাম কম

চামড়ার দাম কম

এবার নামমাত্র দামে লোকজন বিক্রি করতে বাধ্য হলেন কোরবানির পশুর চামড়া। চামড়ার ন্যায্য দাম না পাওয়ায় অনেক কোরবানিদাতা তা মাদ্রাসায় দান করে দিয়েছেন। এদিকে, কোরবানির চামড়ার দাম কম থাকায় হতাশ মৌসুমী ব্যবসায়ীরাও।

পাঁচ বছর আগেও ঢাকায় প্রতি বর্গফুট লবণযুক্ত গরুর চামড়ার ক্রয়মূল্য ছিল নব্বই টাকা। কিন্তু দাম এখন নেমে এসেছে অর্ধেকে।

চামড়া বিক্রির টাকা থেকে আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল ব্যক্তিদের দান করেন কোরবানিদাতারা। এবার নামমাত্র মূল্যে চামড়া বিক্রি হওয়ায় আর্থিক সহায়তার পরিমাণ কমে যাবে। কম দামের কারণে অনেকেই বিভিন্ন মাদ্রাসায় দান করে দিয়েছেন কোরবানির চামড়া।

বাংলাদেশে চামড়া শিল্পের প্রায় সিংহভাগ কাঁচা চামড়া সংগ্রহ করা হয় কোরবানির সময়। কিন্তু পাড়া-মহল্লায় মৌসুমী ব্যবসায়ীরা বলছেন, এবার লাটে উঠেছে তাদের ব্যবসা। 

চামড়া সংগ্রহকারীদের অভিযোগ রয়েছে, গতবার দেশীয় বাজারে চামড়ার দাম কম ছিল। তখন ব্যবসায়ীদের অজুহাত ছিল অান্তর্জাতিক বাজরে চামড়ার দাম কমেছে। এবারও আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমেছে এমন অজুহাতে ক্রেতারা কম দামে চামড়া কিনেছেন।

এবার ঢাকায় লবনযুক্ত প্রতি বর্গফুট গরুর চামড়া ৪৫-৫০ টাকা নির্ধারণ হয়। আর ঢাকার বাইরে নির্ধারণ করা হয় ৩৫ থেকে ৪০ টাকা। অন্যদিকে সারা দেশে খাসির চামড়া ১৮-২০ টাকা এবং বকরির চামড়া ১৩-১৫ টাকায় সংগ্রহ করার কথা। অথচ গতবছর ট্যানারি ব্যবসায়ীরা ঢাকায় প্রতি বর্গফুট গরুর চামড়া ৫০ থেকে ৫৫ টাকা এবং ঢাকার বাইরে ৪০ থেকে ৪৫ টাকায় সংগ্রহ করেন।

এছাড়া সারাদেশে খাসির চামড়া ২০-২২ টাকা এবং বকরির চামড়া ১৫-১৭ টাকায় সংগ্রহ করা হয়।