DBC News
চীনের দুই পুঁজিবাজারের ২৫ শতাংশ শেয়ারের টাকা আসবে শেষ সপ্তাহে 

চীনের দুই পুঁজিবাজারের ২৫ শতাংশ শেয়ারের টাকা আসবে শেষ সপ্তাহে 

চীনের দুই পুঁজিবাজার সাংহাই ও শেনজেন স্টক এক্সচেঞ্জ আগষ্টের শেষ সপ্তাহে ৯৪৬ কোটি ৯৮ লাখ ২৬ হাজার ৬৪৫ টাকা দিবে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জকে। ডিএসই'র কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে ২৫ শতাংশ শেয়ারের বিনিময়ে এ টাকা দিচ্ছে চীনের এই দুই স্টক এক্সচেঞ্জ।  সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ডিএসইর অংশীদার হিসেবে চীনা কনসোর্টিয়াম পুঁজিবাজারে আসায় ঘুরে দাঁড়াবে বাজার।

ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশন আইন অনুযায়ী ডিএসইর ২৫ শতাংশ অর্থাৎ ৪৫ কোটি ৯ লাখ ৪৪ হাজার ১২৫টি শেয়ার বিক্রি করা হয়েছে চীনা কনসোর্টিয়ামের কাছে। সেই চুক্তি অনুসারে চীনা দুই স্টক এক্সচেঞ্জ আগস্ট মাসের শেষদিকে শেয়ারের দামের টাকা দিচ্ছে ডিএসইকে।

ডিবিএ'র সাবেক সভাপতি আহমেদ রশিদ লালী জানান, 'চীনাদের বিনিয়োগের টাকা আগস্টের শেষের দিকেই আমরা হাতে পাবো। আমাদের একটা সমস্যা ছিল যে টাকা কিভাবে আনা হবে। এইটা কি নীটা অ্যাকাউন্টে আসবে নাকি ফরেন এ্যাকাউন্টে আসবে, আমরা আপাতত সে ঝামেলা শেষ করেছি। বাংলাদেশ ব্যাংক আমাদের নীটা অ্যাকাউন্টে টাকা আনার অনুমতি দিয়েছে।'

দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করে বাজারে আস্থা ও তারল্য সংকট দূর করতে এই টাকা বিনিয়োগ করবে শেয়ারহোল্ডাররা। সেই লক্ষ্যে অর্থমন্ত্রীকে একটি প্রস্তাবও দেয়া হয় এই টাকার ওপর কর প্রত্যাহারের জন্য। ডিবিএ'র সাবেক সভাপতি বলেন, 'এই টাকা আমরা যাতে পুঁজিবাজারে ধরে রাখতে পারি, সেজন্য এই টাকার সুদ মওকুফ করার জন্য আমরা অর্থমন্ত্রীর কাছে প্রস্তাবণা দিয়েছি। কিন্তু তিনি এখনো কোন সিদ্ধান্ত জানায়নি।'

ইতিমধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট করাসহ অন্যসব আনুষ্ঠানিকতা শেষ হয়েছে। তবে শেয়ারহোল্ডারদের কর প্রত্যাহার দাবি সস্পূর্ণ অযৌক্তিক বলে জানান পূঁজিবাজার বিশ্লেষক আবু আহমেদ। তিনি বলেন, 'স্বভাবত এই টাকার ৫০% শেয়ার সরকারকে দিতে হয়। কিন্তু কোন  কারণে বা কোন যুক্তিতে তারা এই টাকার সুদের মওকুফ চাচ্ছে। সাধারণ বিনিয়োগ কারীরাও বিনিয়োগ করছে,তাহলে তাদেরকেও কি এই সুযোগ দেয়া হবে। তাদের উচিত দেন দরবার করে ভালো কোম্পানীকে বিনিয়োগে উৎসাহী করে টার্নওভার বাড়ানো।'

চীনা কনসোর্টিয়াম ৩৭ মিলিয়ন ডলার অর্থ দেবে কারিগরি সহযোগিতায়। এ টাকায় ডিএসইতে ডাটা সেন্টার ও ক্লিয়ারিং অ্যান্ড সেটেলম্যান্ট কর্পোরেশন করা হবে।