DBC News
সাফ অনূর্ধ্ব–১৫: এক গোলে পিছিয়ে বাংলাদেশ

সাফ অনূর্ধ্ব–১৫: এক গোলে পিছিয়ে বাংলাদেশ

সাফ অনূর্ধ্ব–১৫ ফুটবলে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্যে ফাইনাল ম্যাচে ভারতের মুখোমুখি হয়ে এক গোলে পিছিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। ভুটানের থিম্পুতে ম্যাচটি শুরু হয় বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টায়।

গ্রুপপর্বে পাকিস্তানকে ১৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করে আসর শুরু করে বাংলার মেয়েরা। এরপর নেপালকে হারিয়ে গ্রুপ সেরা হয়ে সেমিতে যায় গোলাম রব্বানী ছোটন শিষ্যরা। সেমিফাইনালে কিশোরীরা অতিক্রম করে স্বাগতিক ভুটানের বাধা। ফাইনালে প্রতিপক্ষ শক্তিশালী ভারত। তবে পরিসংখ্যান বিবেচনায় ফেভারিট হিসেবেই মাঠে নামবে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৫ দল। 

গেলো বছর কমলাপুরের অ্যাস্ট্রো টার্ফে ভারত বধের রণ কৌশলই কি আবারও প্রয়োগ করবেন বাংলাদেশের কোচ? নাকি নতুন করে ছক কষছেন সেকেন্ড টাইটেল জেতার? 

সময় বদলেছে, বদলেছে মাঠ, প্রতিপক্ষই কেবল চেনা, তারাও পেরিয়ে এসেছে গ্রুপ পর্ব, জিতে এসেছে সেমিফাইনাল। তাই নতুন করেই আট ঘাট বেঁধে খেলতে হবে বাংলার কিশোরীদের।

ছয় দলের টুর্নামেন্টে অনুমিতভাবেই ফাইনালে উঠেছে দুই ফেবারিট দল। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে ভারত হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা, ভুটান ও নেপালকে। সব মিলিয়ে ভারত প্রতিপক্ষের জালে বল পাঠিয়েছে ১৫ বার। গোল খেয়েছে একটি। আর বাংলাদেশ ফাইনালে উঠেছে পাকিস্তান, নেপাল ও ভুটানকে হারিয়ে। তিন ম্যাচে বাংলাদেশ কোনো গোল হজম না করেই দিয়েছে ২২টি। ৪টি করে গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ার লড়াই চলছে তহুরা খাতুন ও ভারতের সিল্কি দেবীর মধ্যে।

গত বছর ভারতকেই সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ টুর্নামেন্টে দুবার হারিয়েছিল বাংলাদেশ। লিগ পর্বে ৩-০ গোলে হারানোর পর ফাইনালে বাংলাদেশ জেতে ১-০ গোলে। বয়সভিত্তিক প্রতিযোগিতায় সর্বশেষ পাঁচবারের সাক্ষাতে বাংলাদেশ জিতেছে চারবার। ঢাকায় ২০১৪ সালে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইপর্বে ভারত জিতেছিল ২-১ গোলে। এরপর বাংলাদেশ ২০১৬ সালে তাজিকিস্তানে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৪ আঞ্চলিক চ্যাম্পিয়নশিপের গ্রুপ পর্বে ভারতকে হারিয়েছিল ৩-১ গোলে। ফাইনালে ভারতকে হারায় ৪-০ গোলে।