DBC News
ফিক্সিংয়ের দায়ে ১০ বছর নিষিদ্ধ জামশেদ

ফিক্সিংয়ের দায়ে ১০ বছর নিষিদ্ধ জামশেদ

স্পট ফিক্সিংয়ের দায়ে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে ১০ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান নাসির জামশেদ। পিএসএলে ম্যাচ পাতানোর দায়ে সব ধরনের ক্রিকেটে তাকে নিষিদ্ধ করা হয়। ২০১৬-১৭ মৌসুমে পিএসএলে ম্যাচ গড়াপেটার দায়ে তাকে এই শাস্তি দিয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হলেও ক্রিকেট কিংবা ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট কোন বিষয়ে অংশ নিতে পারবেন না জামশেদ।

পিএসএলের ২০১৬-১৭ মৌসুমে বেশ কয়েকজন পাকিস্তানি ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগ ওঠে। এদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন নাসির জামশেদ। এক বছরের জন্য নিষিদ্ধও করেছিল পিসিবি। তবে, অভিযোগ অস্বীকার করেন জামশেদ।

ফলে তিন সদস্যের দুর্নীতি বিরোধী ট্রাইব্যুনাল গঠন করেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান নাজাম শেঠি। এই ট্রাইব্যুনালের প্রধান ছিলেন ফজল-ই মিরান চৌহান। এছাড়া অন্য দুই সদস্য ছিলেন সাবেক ক্রিকেটার আকিব জাভেদ এবং অ্যাডভোকেট শাহজাইব মাসুদ।

পরে তিন সদস্যের দুর্নীতি বিরোধী ট্রাইবুনালের তদন্তে প্রমাণিত হয় স্পট ফিক্সিংয়ে জামশেদের জড়িত থাকার কথা। পিসিবি তার বিরুদ্ধে যে সাতটি ধারায় আচরণ বিধি ভঙ্গের অভিযোগ তুলেছিলো তার মধ্যে পাঁচটিতেই আচরণ ভঙ্গের অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। এতে বড় ধরনের শাস্তিই পেতে হচ্ছে জাতীয় দলের হয়ে ৪৮ ওয়ানডে, ১৮ টি-টোয়েন্টি ও ২টি টেস্ট খেলা এই ক্রিকেটারকে।

এর আগে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) প্রথম আসরে স্পট ফিক্সিং সংক্রান্ত বিষয়ে জুয়াড়িদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখার অভিযোগ ওঠে নাসির জামশেদের বিপক্ষে। এ বিষয়ে ঢাকার মিরপুর থানার পুলিশ জামশেদকে আটকও করে। এরপর স্পট ফিক্সিংয়ের সঙ্গে বারবার জড়িয়েছে নাসির জামশেদের নাম। 

গেল সপ্তাহে একই অপরাধে চার বছরের জন্য নিষিদ্ধ হন শাহজাইব হাসান। এ দুইজন ছাড়াও একই ঘটনায় বিভিন্ন মেয়াদে নিষেধাজ্ঞা ভোগ করছেন শারজিল খান, খালিদ লতিফ, মোহাম্মদ ইরফান ও মোহাম্মদ নওয়াজ।