DBC News
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে আর বাধা নেই আশরাফুলের

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে আর বাধা নেই আশরাফুলের

দীর্ঘ পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার জন্য মুক্ত হলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে শেষ হলো অপেক্ষার পালা। বিপিএল দ্বিতীয় আসরে ফিক্সিং-এ জড়িত থাকায় এই শাস্তি পেয়েছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। দুই বছর আগে ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরলেও এবার সুযোগ পাবেন যে কোনো আন্তর্জাতিক আসরে খেলার।

বাংলাদেশ ক্রিকেটের প্রথম গ্লোবাল স্টার তিনি। অনেকের মতে এ দেশের সবচেয়ে প্রতিভাবান ব্যাটসম্যানও। ভুল পথে হেঁটে নিজে যেমন কলঙ্কিত হয়েছেন তেমনি ইমেজ নষ্ট করেছেন দেশের ক্রিকেটেরও।

বিপিএল দ্বিতীয় আসরে স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। তদন্ত শুরু হয় ২০১৩ সালের মে মাসে। ক'দিন বাদে নিজ মুখেই স্বীকার করেন ম্যাচ গড়াপেটায় জড়িত থাকার কথা। নানা ধাপ আর সাক্ষ্য-প্রমাণ শেষে ২০১৪ সালের জুনে সব ধরণের ক্রিকেট থেকে আট বছরের জন্য নিষিদ্ধ হন আশরাফুল। আপীলে তা কমে হয় পাঁচ বছর।

এর মাঝে অনানুষ্ঠানিক ক্রিকেট খেলেছেন যুক্তরাষ্ট্রে। আর ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরেছেন ২০১৬ সালের আগস্টে। ফেরার মৌসুমটা সুখকর হয়নি তার। তবে, গেল মৌসুমে দারুণ পারফর্ম করেন লিটল মাস্টার আশরাফুল। লিস্ট 'এ' ক্রিকেটে এক মৌসুমে করেছেন রেকর্ড ৫ সেঞ্চুরি। যে কীর্তি আর কোনো বাংলাদেশি ক্রিকেটারের নেই।

জাতীয় দলের জার্সিতে তিন ফরম্যাটে মাঠে নেমেছেন ২৬১ ম্যাচে। ৯ সেঞ্চুরিতে রান করেছেন ৬৬৫৫। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২০০১ এ টেস্ট অভিষেকেই ইতিহাসের পাতায় নাম লিখিয়েছেন। সর্বকনিষ্ঠ সেঞ্চুরিয়ান হিসেবে আশরাফুলের রেকর্ডটা এখনও অটুট।

২০০৫ সালে কার্ডিফে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ উইনিং সেঞ্চুরি, ২০০৭ বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দারুণ এক ইনিংস। কিংবা গলের সেই ১৯০ রান আজও জ্বলজ্বলে। এসবই হয়তো বাঁচিয়ে রাখবে ওয়ান্ডারফুল আশরাফুলকে।

মেঘে মেঘে অনেক বেলা গেল। বয়স এখন ৩৪। তবে আবারও বাংলাদেশের জার্সি গায়ে জড়ানোর স্বপ্ন দেখেন আশরাফুল। নিজেও জানেন ফেরার পথটা সহজ না।