DBC News
ভারতের রাজ্যসভায় তিন তালাক বিল

ভারতের রাজ্যসভায় তিন তালাক বিল

ভারতের রাজ্যসভায় আজ উঠছে তিন তালাক বিল। তবে রাজ্যসভায় ওঠার একদিন আগেই বিলের এক সংশোধনীতে অনুমোদন দেয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা।

গতকাল মুসলিম উইমেন প্রোটেকশন অফ রাইটস অন ম্যারেজ বিল, ২০১৭-তে তিন রকমের সংশোধনী প্রস্তাব দেয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা।  এরমধ্যে প্রথমটি হচ্ছে, তালাক প্রাপ্ত স্ত্রী বা তার রক্তের সম্পর্কের কোন আত্মীয়ই কেবলমাত্র স্বামীর বিরুদ্ধে মামলাটি করতে পারবে।  দ্বিতীয়টি হচ্ছে, যদি স্বামী ও স্ত্রী তাদের মধ্যে মতপার্থক্যের মিমাংসা করতে চান, তাহলে মামলা খারিজ হতে পারে। এছাড়া স্ত্রীকে তাৎক্ষণিক তিন তালাক দেয়া স্বামীকে জামিন দিতে পারবেন একজন ম্যাজিস্ট্রেট। 

গত বছর ২৯শে ডিসেম্বর লোকসভায় তাৎক্ষণিক তিন তালাক বিল পাশ হয়। বিলে তিন তালাককে ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়েছে। গত বছর মূল বিলটি লোকসভায় পাস হয়, কিন্তু রাজ্যসভায় এসে সেটা আটকে যায়। কেননা লোকসভায় সংখ্যাগুরু হলেও রাজ্যসভায় ভারতীয় জনতা পার্টি, বিজেপি নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স, এনডিএ জোট সংখ্যালঘু।

মন্ত্রিসভার এই অনুমোদন এনডিএ জোটের বাইরের দলগুলোকে, যারা এই বিলটির অপব্যবহার হতে পারে বলে উদ্বিগ্ন, তাদেরও সংশোধিত বিলটিতে সমর্থনে উদ্বুদ্ধ করবে। বিজেপি বিলটি উত্থাপনের সময় নিজেদের সকল সাংসদকে রাজ্যসভায় উপস্থিত থাকার নির্দেশ দিয়েছে।

বিলটিতে আনা নতুন পরিবর্তনগুলো বিষয়ে এনডিএর বাইরের দল এআইএডিএমকে ও উড়িষ্যার মুখ্য মন্ত্রী নবীন পাটনায়েকের বিজু জনতা দল কী ভাবছে, তা জানা যায়নি। রাজ্যসভায় এ দুই দলের ২২ জন সাংসদ আছেন।

গত বছর লোকসভায় এই বিলটির ব্যাপারে এ দুই দল বিরোধিতা করেছিল। সে সময় বিজেপির ভারত্রুহারি মাহতাব বিলটিকে ত্রুটিপূর্ণ বলে আখ্যায়িত করেন এবং বলেন, বিলটি মুসলিম নারীদের অপকার সাধন করতে পারে। এআইএডিএমকে কেন্দ্রের কাছে প্রস্তাব রাখে স্বামীদের তিন বছরের কারাদণ্ডের ধারাটি বাতিলের ব্যাপারে। এ দুই দল সে সময় বিলটির বিরোধিতা না করলেও ভোট দেয়া থেকে নিজেদের বিরত রাখে।