DBC News
যুক্তরাষ্ট্রে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট

যুক্তরাষ্ট্রে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট

যুক্তরাষ্ট্র আর ক্রিকেট। এ যেন দুই মেরুর গল্পই ছিল। দিন বদলেছে। ক্রিকেটের হাওয়া পৌঁছে গেছে মার্কিন মুলুকেও। ছয়টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। যার সবই টি-টোয়েন্টি। সব ম্যাচই হয়েছে লডারহিলের সেন্ট্রাল ব্রোয়ার্ড রিজিওনাল পার্কে। এখানেই সিরিজের দ্বিতীয় ও তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ-উইন্ডিজ।

একুশ শতকের আমেরিকা বেসবল আর বাস্কেটবল বলতেই অজ্ঞান। অদ্ভুত মনে হলেও দেশটার প্রফেশনাল স্পোর্স্টস মার্কেট ইউরোপ, মধ্যপ্রাচ্য আর আফ্রিকার মিলিত বাজারের চেয়েও ৫০ শতাংশ বড়। ডলারের অঙ্কে সংখ্যাটা ৬৯ বিলিয়ন।

তাছাড়া অর্থনীতি বড় হওয়ায় ক্রীড়াখাতে আমেরিকার অবকাঠামোও যে বেশ উন্নত সেকথা আলাদা করে বলার দরকার নেই। আটলান্টিকের ওপারে ইউরোপ থেকে আসা ফুটবলের হাওয়া আমেরিকায় লাগলেও ক্রিকেটটা তেমন প্রতিষ্ঠিত হয়নি এখনো। সেটা করার জন্যই উইন্ডিজ-বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি সিরিজ নিয়ে মার্কিন মুলুকে হাজির ক্যারিবিয়ান ক্রিকেট বোর্ড।

ব্যাট-বলের লড়াইয়ে এখানে কাটতি কম, তাই ম্যাচের আয়োজন সেন্ট্রাল ব্রোয়ার্ড স্টেডিয়ামের মতো দ্বিতীয় বা তৃতীয় সারির মাঠে। অবশ্য ফ্লোরিডার এই স্টেডিয়ামের ফ্যাসিলিটিস পেছনে ফেলবে বাংলাদেশের সেরা মাঠটাকেও।

সত্তর মিলিয়ন ডলার খরচায় বানানো এই স্টেডিয়ামের যাত্রা শুরু ২০০৭-এ। ধারণক্ষমতা ২০ হাজার। ১৫৩ মিটার ক্রিকেট পিচের সাথে একই মাঠে আছে ফুটবল খেলার বন্দোবস্ত। আছে আলাদা দুই আর্টিফিশিয়াল টার্ফ, দেড় মাইল দীর্ঘ হাঁটার পথ, সেই সাথে বাস্কেটবল, নেটবল আর টেনিস কোর্ট। চালু হওয়ার এক বছরের মাথায় একটা ওয়াটারপার্কও যুক্ত করা হয়েছে ব্রোয়ার্ড কমপ্লেক্সে।