DBC News
বেশিরভাগ জেড শেয়ারেই চলছে কারসাজি

বেশিরভাগ জেড শেয়ারেই চলছে কারসাজি

জেড ক্যাটাগরির অনেক শেয়ারের বিরুদ্ধে কারসাজির অভিযোগ থাকলেও মাত্র দুইটি কোম্পানিকে তালিকাচ্যুত করাকে পক্ষপাতমূলক আচরণ বলছেন পুঁজিবাজার বিশ্লেষকরা।  তারা বলছেন, ডিএসই'র এমন পদক্ষেপে শাস্তি পেলেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরাই।  এসব কোম্পানির মালিকদের বিরুদ্ধে মামলা ও সম্পদ বিক্রি করে বিনিয়োগকারীদের টাকা ফেরত দেয়ার পক্ষেও মত রয়েছে।

জেড ক্যাটাগরির দুই কোম্পানির তালিকাচ্যুতির রেশ এখনো কাটেনি।  বাজারে এসব শেয়ারের ক্রেতা নেই।  বরং তালিকাচ্যুতির আশঙ্কায় তড়িঘড়ি করে বের হতে চাইছেন বিনিয়োগকারীরা।  ফলাফল- বারবার হল্টেড হচ্ছে এসব শেয়ার। 

কারসাজির কারণে দুই কোম্পানি তালিকাচ্যুত হলেও একই অভিযোগ থাকা অনেক কোম্পানির বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।

পুঁজিবাজার বিশ্লেষক মোস্তাফা বিলাল এর মতে, একই ক্যাটাগরি তে যারা পরেছে তাদের সবাইকে ডেলিস্টেড করা উচিৎ ছিলো। এমন সিদ্ধান্ত ‘আনফেয়ার’ বলেও মত দেন তিনি। 

তালিকাচ্যুত কোম্পানির সম্পদ বিক্রি করে অর্থ ফেরত দেয়া উচিত বিনিয়োগকারীদের এমন মত দিলেন ডিএসই ব্রোকারেজ অ্যাসোসিয়েশানের সভাপতি মোস্তাক আহমেদ সাদেক।   

চলতি সপ্তাহে নতুন মুদ্রানীতি দেবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বাজারে ছড়িয়ে পড়া এই বিষয়ক নানা গুজবে প্যানিক সেল বন্ধের পরামর্শ দিয়ে পুঁজিবাজারবান্ধব মুদ্রানীতির প্রত্যাশা বিশ্লেষকদের। ৩১শে জুলাই চলতি অর্থবছরের প্রথম পর্বের মুদ্রানীতি দেবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।