DBC News
২ বছরেও মেলেনি শ্যুটিং ফেডারেশনের জন্য অস্ত্র বরাদ্দের ছাড়পত্র

২ বছরেও মেলেনি শ্যুটিং ফেডারেশনের জন্য অস্ত্র বরাদ্দের ছাড়পত্র

দুই বছর আগে আবেদন করলেও এখনো স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ছাড়পত্র পায়নি শ্যুটিং ফেডারেশন। পর্যাপ্ত গুলির অভাবে স্থগিত রাখা হয়েছে ঘরোয়া টুর্নামেন্ট। টান পড়েছে জাতীয় দলের শ্যুটারদের জন্য রাখা মজুদেও। অথচ এই সময়টাতেই চালাতে হচ্ছে এশিয়ান গেমসের জোর প্রস্তুতি।

আগস্টের মাঝামাঝিতে ইন্দোনেশিয়ায় বসছে এশিয়ান গেমসের এবারের আসর। আর সেখানে শুটারদের ওপরই সবচেয়ে বড় ভরসা বাংলাদেশের। তাই প্রস্তুতিতেও কোনো ফাঁক রাখায় উপায় নেই।

বাংলাদেশ শ্যুটিং দলের কোরিয়ান কোচ কিম ইয়ং জানান, বাংলাদেশের শুটাররা এরই মধ্যে অনেক কিছু অর্জন করেছে। তবে এশিয়ান গেমসে ভালো করতে হলে মানসিকভাবে আরও শক্ত আর আত্মবিশ্বাসী হতে হবে ওদের। সেই সাথে করতে হবে অনেক বেশি অনুশীলন।

এই সময়েই শঙ্কটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে ফেডারেশন। বাজেটের সমস্যা না থাকলেও ছাড়পত্র না থাকায় কেনা যায়নি অস্ত্র। ২০১৬ সালে আবেদন করলে সেটা ঝুলে আছে এখনো।

অস্ত্র আমদানীর প্রয়োজন হলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে আবেদন করতে হয় ফেডারেশনকে। এসবি আর এনএসআইয়ের কাছ থেকে সে ব্যাপারে সবুজ সংকেত পেলে ছাড়পত্র দেয় মন্ত্রণালয়। অনুমোদিত অস্ত্রের পরিমাণ ও ধরনের ওপর ভিত্তি করে বাজেট হয় আর সে অনুযায়ী আমদানী হয় অস্ত্রের। জার্মানি থেকেই বেশিরভাগ অস্ত্র আমদানী হলেও কিছু কিছু ক্ষেত্রে ইংল্যান্ড থেকেও আনা হয়।

কিন্তু মন্ত্রণালয়ে দুই বছর ধরে অস্ত্র আমদানীর অনুমতি ঝুলে থাকায় এই বিষয়ে এগোতে পারেনি ফেডারেশন। বন্ধ রাখতে হচ্ছে ঘরোয়া প্রতিযোগিতা।     

জাতীয় দলের জন্য মাসে প্রায় দেড় লাখ গুলি লাগে ফেডারেশনের। সেই সাথে ক্লাবগুলোর গুলির চাহিদাও মেটাতে হয়। সেই গুলির এখন সবচেয়ে বেশি শঙ্কট। অথচ আগস্টে এশিয়া কাপ আর অক্টোবরে আর্জেন্টিনায় ইয়ুথ অলিম্পিক।