DBC News
বাণিজ্য যুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্ত হবে বাংলাদেশও

বাণিজ্য যুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্ত হবে বাংলাদেশও

চীন-মার্কিন বাণিজ্য যুদ্ধ দীর্ঘমেয়াদী হলে, ক্ষতিগ্রস্ত হবে বাংলাদেশও। সংকুচিত হবে রপ্তানি বাজার, অন্যদিকে বাড়বে শিল্পের কাঁচামালের আমদানি ব্যয়। সেই সঙ্গে আরেক দফা বিশ্বমন্দারও শঙ্কা আছে। দেশের অর্থনীতিতে এই বাণিজ্য যুদ্ধের প্রভাব এড়াতে রপ্তানির বাজার সম্প্রসারণ ছাড়া আর কোন উপায় দেখছেন না অর্থনীতিবিদরা।

চলমান বাণিজ্য যুদ্ধের মধ্যেই নতুন করে চীনা পণ্য আমদানিতে শুল্ক আরোপ করছে যুক্তরাষ্ট্র। এবারের লক্ষ্য চীন থেকে প্রায় ২০ হাজার কোটি ডলারের মার্কিন আমদানি। নতুন শুল্কের পরিমাণ মোট আমদানির ১০ শতাংশ।

এ বিষয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, 'পুরো বিশ্বের সঙ্গে আমাদের ৮০০ বিলিয়র ডলারের বাণিজ্য ঘাটতি, যার মধ্যে চীনের সাথেই ৫০০ বিলিয়ন। আমাদের এ ঘাটতি কমাতেই হবে। তাই চীনকে অন্তত ২৫ শতাংশ শুল্ক দিতেই হবে।'

পাল্টা প্রতিক্রিয়া দিতে মোটেও দেরি করেনি চীন।

এ ব্যাপারে চীনের বাণিজ্যমন্ত্রী জিয়াও ফেঙ বলেন, 'পুরো বিশ্বের উৎপাদন ও বিপণন ব্যবস্থাকেই আক্রমণ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এমন পদক্ষেপের প্রতিউত্তর দিতে চীন সর্ম্পূর্ণ প্রস্তুত বলেও জানান জিয়াও ফেঙ।

ফলাফল দুই দেশই একে অন্যের ৩ হাজার ৪০০ কোটি ডলারের পণ্যের ওপর ২৫ শতাংশ হারে শুল্কারোপ। সেপ্টেম্বর নাগাদ আরও ২০ হাজার কোটি ডলারের পণ্যে ১০ শতাংশ শুল্ক আদায়ের ঘোষণা দিয়েছে ওয়াশিংটন।

নতুন করে শুল্কারোপের বিষয়ে ডোনাল্ট ট্রাম্প বলেন, 'মুক্ত বাণিজ্য নীতির যুগ শেষ। আমেরিকার কাছ থেকে অনৈতিক সুবিধা নেয়ার দিন শেষ।'

অবাধ বাণিজ্য নীতির অবসানের এমন ঘোষণা আর বাণিজ্যযুদ্ধ শঙ্কায় ফেলেছে বাংলাদেশের দেশের ব্যবসায়ীদেরও।

এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দীন জানান, যুক্তরাষ্ট্র ও চায়না যেভাবে পাল্টাপাল্টি শুল্কারোপ করছে তা কোথায় যেয়ে কোন কোন পণ্যের ওপর পড়ে তা পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। যদি দেখা যায় যে চায়নিজ এ্যাপারেল এর ওপরও শুল্কারোপ করছে তাহলে সাময়িকভাবে হয়ত বাংলাদেশ লাভবান হবে। কিন্তু তখন চায়না হয়ত আবার কাঁচামালের দাম বাড়িয়ে দিতে পারে বলেও জানান এফবিসিসিআই সভাপতি।

এ বিষয়ে সিপিডির রিসার্চ ফেলো তৌফিকুল ইসলাম খান জানান, বিশ্ববাণিজ্য সংস্থার আওতায় বাংলাদেশ স্বপ্লোন্নত দেশ হিসেবে যে ধরণের সুবিধা পায় বা আরও বেশি আকারে সুবিধা পাওয়ার কিছুটা সম্ভাবনা ছিলো সেই সম্ভাবনা আর থাকছেনা।

বাংলাদেশ যদি পণ্য বহুমুখীকরণ বা বাজার বহুমুখীকরণ করতে পারে তখন যে প্রবৃদ্ধিটা দরকার আছে সামনের দিকে সেই প্রবৃদ্ধিটা তখন অন্যান্য বাজার থেকে এ সুবিধা নেয়া সম্ভব হবে বলেও জানান সিপিডির রিসার্চ ফেলো তৌফিকুল ইসলাম খান।

বাণিজ্য যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র চীনের পাশাপাশি যোগ হয়েছে কানাডা, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, রাশিয়া আর প্রতিবেশী দেশ ভারতও।