DBC News
প্রথমবার বিশ্বকাপের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া

প্রথমবার বিশ্বকাপের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া

ফিফা বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো ফাইনালে উঠলো ক্রোয়েশিয়া। রাশিয়ার লুঝনিকি স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারিয়ে নয়া রেকর্ডের জন্ম দিল ওরা। আর সেমিফাইনাল থেকেই বিদায় ঘন্টা বাজলো থ্রি-লায়নদের।

লুঝনিকিতে রাশিয়া বিশ্বকাপের শেষ সেমিফাইনাল, ব্যাটলফিল্ডে যথা সময়ে হাজির ইংল্যান্ড ক্রোয়েশিয়া, প্রেরণা কিংবা, চাপ ডাগ আউটে বসা কোচের কাছে জমা রেখে প্রথম বাঁশি বাজতেই দুই দল ঝাঁপিয়ে পড়লো বল দখলের লড়াইয়ে।

চার মিনিটের মাথায় ইংলিশ আলি ডেলি ধেয়ে যাচ্ছিলেন ক্রোয়েশিয়ার ডি বক্সের দিকে, ক্রোয়েট অধিনায়ক লুকা মদ্রিসের ছোট্ট একটা ধাক্কাই যেন গড়ে দিলো ম্যাচের ভাগ্য, কিয়েরন ট্রিপিয়েরের নেয়া ফ্রি কিকে বল খুঁজে নিলো ক্রোয়েশিয়ার জাল।

ইংল্যান্ডময় প্রথম ৪৫শের গোল পরবর্তী খেলায় আফসোসে পুড়েছে দুই দলই। ২৯ মিনিটে হ্যারিকেইনদের সহজ সুযোগের প্রথম প্রয়াস ব্যর্থ হলেও দ্বিতীয় প্রয়াস কাটা পড়ে অফ সাইডে, ৩১ মিনিট রেবিসের শর্ট আটকে দেয় ইংলিশ গোল কিপার, ১-০ তে পিছিয়ে থেকে ক্রোয়েটদের ড্রেসিং রূম যাত্রা।

বিরতি থেকে ইংল্যান্ড ফিরলো চাঙ্গা হয়ে আর মদ্রিস-রাকিটিসরা ফিরলো যেন ভারী পায়ের সাথে একারাশ ক্লান্তি নিয়ে, নিজেদের অর্ধে ডেলি আলী আর লিঙ্গার্ডদের দাপদাপিতে কোণঠাসা ক্রোয়েশিয়া।

হঠাতই যেন বদলে গেলো দৃশ্যপট, ক্রোয়েটদের ক্লান্তি ইংলিশদের ঘাড়ে, সেই ফাঁকে ৬৮ মিনিটে শিমে বেসালকোর নেয়া কিকে অদ্ভুত কায়দায় পা লাগিয়ে ইংল্যান্ডের জালে বল পাঠালেন পেরিসিস।

এরপর মদ্রিসদের আক্রমন ঠেকিয়েছে ইংল্যান্ড, লিড হারানোর হতাশায় দিশেহারা হ্যারিকেইন অ্যান্ড কোম্পানী। নির্ধারিত সময় শেষে খেলা গড়ায় অতিরিক্ত ৩০ মিনিটে।

মিস্টার এক্সট্রা থার্টিতে সফল ক্রোয়েশিয়া, ১০৯ মিনিটে গোল্ডেন গোলটা পেলো মারিয়ো মানজুকি কাছ থেকে। এরপর আর মাঠে কতৃত্ব ফিরে পায়নি ইংল্যান্ড, শেষ বাঁশি বাজতেই ক্রোয়েট শিবিরে উল্লাস, ইংলিশদের অশ্রু ছুয়েছে লুঝনিকির মাটি। বিশ্বকাপের ফাইনালে ফ্রান্সের প্রতিপক্ষ ক্রোয়েশিয়া।