DBC News
রাশিয়া বিশ্বকাপের প্রথম ফাইনালিস্ট ফ্রান্স

রাশিয়া বিশ্বকাপের প্রথম ফাইনালিস্ট ফ্রান্স

রাশিয়া বিশ্বকাপ ২০১৮'র সেমিফাইনালে বেলজিয়ামকে হারিয়ে প্রথম ফাইনালিস্ট ফ্রান্স। সেন্ট পিটার্সবার্গে বেলজিয়ানদের ১-০ গোলে হারায় ফরাসীরা। ব্লুদের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন স্যামুয়েল উমতিতি।

রাশিয়া বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনাল, বল দখলের যুদ্ধের ময়দান সেন্ট পিটার্সবার্গ। বেলজিয়ামের বিপক্ষে অতীত পরিসংখ্যানে হারের খাতাটাই ভারী ফ্রান্সের।

হোটেলে বসে ঠিক করা ৪-২-৩-১ ফরমেশনের খাতা বগলদাবা করে মাঠে হাজির ফরাসী বস দিদিয়ের দেশম, ঘার ঘোরাতেই চোখ ছানাবড়া। ফুটবল এক্সপেরিয়েন্স ডায়েরীর ধুলো ঝেড়ে একই ফরমেশন বেছে নিয়েছেন বেলজিয়াম কোচ রবার্তো মার্তিনেজ।

কাউন্টডাউন শেষে ম্যাজিক্যাল নাইনটির প্রথম বাঁশি, শুরুতেই গ্রিজম্যান, এমবাপ্পেদের বোতলবন্দি করে ফ্রান্স সীমান্তে আতঙ্ক সৃষ্টি করেন লুকাকু, ফেলানী, হ্যাজার্ডরা। হুগো লোরিসের অতীমানবীয় পারফরমেন্সে অক্ষত ফরাসীদের গোল পোস্ট।

এরপর ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ইটের জবাবে পাটকেল, ফরোয়ার্ডদের বুটের খোচায় ক্ষতবিক্ষত পিটার্সবার্গের সবুজ চত্বর। নার্ভ চেপে কখনও আক্রমণ বিপরীতে হাড় হিম করা কাউন্টার এ্যাটাক। প্রথমার্ধের লড়াইয়ে কেউ পিছিয়ে না থাকলেও এগিয়ে ছিলোনা কোন দলই।

১৫ মিনিটের ড্রেসিংরুম  রিফ্রেশমেন্টে দুই কোচের কৌশল হয়তো দেখেনি কেউ, তবে মাঠে এসে দিদিয়ের দেশমকে গুরু দক্ষিণা দিলেন স্যামুয়েল উমতিতি। ৫১ মিনিটে গ্রিজম্যানের নেয়া কর্ণারে উড়ে এসে মাথা ছোঁয়ালেন এই ২৪ বছর বয়সী ডিফেন্ডার, ব্যস সেন্ট পিটার্স বার্গের মত পুরো ফ্রান্সও বোধ হয় কেপে উঠেছে সেই দৃশ্যে।

গোলের পরেই কৌশলে কিছুটা পরিবর্তন দিদিয়ের দেশমের, তবে গোল হজম করেও বড় ম্যাচের ভারে নুয়ে পড়তে দেখা যায়নি লুকাকু, হ্যাজার্ডদের। শুধু অভাব ছিলো ভাগ্যের সহায়তার। না হলে ৬১ শতাংশ বল পজিশন, আর এক হালি কর্নার পেয়ে ব্লুদের গোল মুখ খুলতে পারেনি বেলজিয়াম।

৯৮'র বিশ্বকাপ জয়ী ফরাসীদলের সদস্য ও বর্তমান কোচ দেশামের কপাল চওড়া হয়ে যেন গ্রাস করেছিলো পুরো মাঠ। শেষ বাঁশির পর পরই ফাইনালে ওঠার বিশেষ উল্লাসে মেতে ওঠে হুগো লরিস অ্যান্ড কোম্পানীরা।