DBC News
মন্দা কাটিয়ে প্রবাসী আয় বাড়ছে

মন্দা কাটিয়ে প্রবাসী আয় বাড়ছে

মন্দা কাটিয়ে প্রবাসী আয় বাড়ছে। ২০১৪-১৫ অর্থবছরে প্রবাসীরা দেশে পাঠিয়েছেন ১ হাজার ৫৩২ কোটি মার্কিন ডলার। পরের বছরই তা কমে আসে ১ হাজার ৪৯৩ ডলারে। কমেছে তার পরের বছরও।

তবে কেবলই শেষ হওয়া অর্থবছরে আগের বছরের তুলনায় রেমিট্যান্স প্রবাহ বেড়েছে ১৭ দশমিক ৩ শতাংশ। জুনে ১৩৮ কোটি ২০ লাখ ডলার এসেছে, যা গত বছরের জুনের চেয়ে প্রায় ১৪ শতাংশ বেশি।

টানা ২ বছরের মন্দা কাটিয়ে ইতিবাচক ধারায় ফিরেছে প্রবাসীদের আয় প্রবাহ। ব্যাংকারদের দাবি ডলারের চড়া দাম আর সংস্কার উদ্যোগের ফলেই আগের চেয়ে বৈধভাবে বেশি টাকা পাঠাচ্ছেন প্রবাসীরা। যদিও এখনো হুন্ডির কারণে বিপুল পরিমান বৈদেশিক মুদ্রা দেশে আসেনা।


এক্সিম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মোহাম্মদ হায়দার আলী মিয়া বলেন, 'বাংলাদেশী শ্রমিকের দক্ষতা আগের চেয়ে বেড়েছে। প্রবাসে যাওয়া শ্রমিকের সংখাও বাড়ছে। তবু হুন্ডির মাধ্যমে টাকা পাঠানো নিয়ে উদ্বেগ রয়ে গেছে।'

প্রবাসীদের উপার্জন বৈধভাবে দেশে আনার উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি না হলে টাকা পাচার উদ্বেগজনক পর্যায় চলে যেতে পারে বলে আশংকা ঢাকা স্কুল অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের পরিচালক মোহাম্মদ মহিউদ্দিন সিদ্দিকের।
 

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রথম নয় মাসে (জুলাই-মার্চ) ব্যাংকিং চ্যানেলে প্রবাসীরা ১ হাজার ৭৬ কোটি ১২ লাখ ডলার পাঠিয়েছেন। গত অর্থবছরের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ৯১৯ কোটি ৪৫ লাখ ডলার। সেই হিসাবে আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে চলতি অর্থবছরের নয় মাসে প্রবাসী আয় ১৭ শতাংশ বেড়েছে। 

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরিসংখ্যান বিশ্লেষণে দেখা যায়, গত ডিসেম্বরে রেমিট্যান্স এসেছিল ১১৬ কোটি ডলার। নভেম্বরে ১২১ কোটি ৪৭ লাখ ডলার, অক্টোবরে ১১৬ কোটি ২৭ লাখ ডলার, সেপ্টেম্বরে ৮৫ কোটি ৬৮ লাখ ডলার, আগস্টে ১৪১ কোটি ৪৫ লাখ ডলার এবং অর্থবছরের শুরুর মাস জুলাইয়ে ১১৫ কোটি ৫৫ লাখ ডলার রেমিট্যান্স পাঠান প্রবাসীরা।