DBC News
৯৮ এ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

৯৮ এ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

৯৮ বছরে পা রাখলো দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। ১৯২১ সালের ১লা জুলাই একাডেমিক কার্যক্রম শুরু করে দেশের শিক্ষা-সংস্কৃতি চর্চার অন্যতম এ প্রতিষ্ঠানটি। 'অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়নে উচ্চশিক্ষা’ শ্লোগানে দিনব্যাপী প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত হচ্ছে বর্ণিল সব আয়োজনে।

৩টি অনুষদ, ১২টি বিভাগ, ৩টি আবাসিক হল, ৬০জন শিক্ষক এবং ৮৭৭জন শিক্ষার্থীকে নিয়ে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের যাত্রা শুরু হলেও বর্তমানে এতে ১৩টি অনুষদ, ৮৪টি বিভাগ, ১২টি ইনস্টিটিউট, ৫৪টি গবেষণা ব্যুরো ও কেন্দ্র, ২০টি আবাসিক হল ও ৩টি হোস্টেল রয়েছে। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান শিক্ষার্থী ৩৯ হাজার ৪শ’ ৯৬ জন এবং শিক্ষক সংখ্যা ১ হাজার ৯শ’ ৯৯ জন।
 
রবিববার সকালে, বিশ্ববিদ্যালয়ের মল চত্বরে জাতীয় সংগীতের পর, বেলুন এবং পায়রা উড়িয়ে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন উপাচার্য। পরে, ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্র পর্যন্ত শোভাযাত্রায় অংশ নেন শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা এবং কর্মচারীরা।

পরে ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্রে আয়োজিত আলোচনা সভায় ড. আনিসুজ্জামান বিশ্ববিদ্যালয়টির বর্তমান গুনগত মান নিয়ে প্রশ্ন তুলেন। উপাচার্যও এ বিষয়গুলোতে একমত পোষণ করে বলেন, অন্তর্ভূক্তিমূলক দৃস্টিভঙ্গির মাধ্যমে উচ্চ শিক্ষার মানোন্নয়ন সম্ভব। 

পূর্ব বঙ্গের পিছিয়ে পড়া সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলমান জনগোষ্ঠীকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতেই একটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেয়া হয়। কিন্তু সৃষ্টির শুরুতেই নানা প্রতিকূলতার মুখে পড়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। আর ১৯১৪ সালে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শুরু হওয়াতে বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা হওয়া নিয়ে দেখা দেয় অনিশ্চয়তা। এরপর ১৯১৭ সালের মার্চ মাসে ইম্পেরিয়াল লেজিসলেটিভ কাউন্সিলে নওয়াব আলী চৌধুরী সরকারের কাছে অবিলম্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বিল পেশ করার আহ্বান জানান। এর প্রেক্ষিতে ১৯২০ সালের ২৩ শে মার্চ তৎকালীন গভর্নর জেনারেল এ বিলে সম্মতি দেন। এ আইনটিই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ভিত্তি। এ আইনের বাস্তবায়নের ফলাফল হিসেবে ১৯২১ সালের ১লা জুলাই  যাত্রা শুরু করে প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

১৯২১ সালের জুলাই মাসের এক তারিখেই ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য উন্মুক্ত হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বার। সে সময় ঢাকার সবচেয়ে অভিজাত ও সুন্দর রমনা এলাকায় প্রায় ৬০০ একর জমি নিয়ে যাত্রা শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়টি। আর প্রতিষ্ঠার ওই দিনটিই প্রতি বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

দীর্ঘ এ সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়টি জড়িয়েছে নানামুখী সমস্যায়। স্বাধীনতার পর থেকে সরকারগুলোর প্রভাবে প্রাচ্যের অক্সফোর্ডখ্যাত এ প্রতিষ্ঠানটি স্বকীয়তা হারিয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

দিবসটি উপলক্ষ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির পাশাপাশি সকল অনুষদ, বিভাগ, ইনস্টিটিউট ও হল দিনব্যাপী নিজস্ব কর্মসূচি গ্রহণ করে।

আরও পড়ুন

ডাকসু'র মনোনয়ন বিতরণ চলছে

দ্বিতীয় দিনের মত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ, ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচনের মনোনয়ন ফরম বিতরণ চলছে। সকাল ১০টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৮টি আবাসিক হল থেকে...

হারিয়ে যাচ্ছে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর মাতৃভাষা

প্রাতিষ্ঠানিক চর্চা না থাকায় জয়পুরহাটে হারিয়ে যাচ্ছে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর মাতৃভাষা।  প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় শ্রেণি পর্যন্ত সাদ্রী ভাষার বই বিনামূল্যে দেয়া...

ভাষার শুদ্ধ ব্যবহারের দাবিতে বর্ণ মিছিল

দেশের সর্বত্র বাংলা ভাষার শুদ্ধ ব্যবহারের দাবিতে শেরপুরে অনুষ্ঠিত হয়েছে বর্ণ মিছিল। বুধবার উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর উদ্যোগে শেরপুরের ঝিনাইগাতীর আমতলা এলাকা থেকে...

গুণীজনের হাতে একুশে পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী

সাহিত্য, মুক্তিযুদ্ধ, শিল্পকলাসহ রাষ্ট্রের বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ২১ বিশিষ্ট নাগরিককে ২০১৯ সালের একুশে পদক তুলে দিলেন, প্রধানমন্ত্...