DBC News
ব্যাংক ঋণের সুদের হার ৯ শতাংশ করার সিদ্ধান্ত

ব্যাংক ঋণের সুদের হার ৯ শতাংশ করার সিদ্ধান্ত

পয়লা জুলাই থেকে ব্যাংক ঋণের সুদের হার ৯ শতাংশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংক, বিএবি। একই সঙ্গে আমানতের সুদের হার সর্বোচ্চ ৬ শতাংশ করার কথাও জানানো হয়েছে।

বুধবার সকালে রাজধানীর গুলশানে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংক বিএবি'র কার্যলয়ে মালিকদের এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। বিএবি’র চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মজুমদার সুদের হার কমিয়ে আনার এ ঘোষণা দেন। 

এ সময় আগামী ১লা জুলাই থেকে বিনিয়োগকারিদের জন্য ঋণের সুদের হার সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ এবং আমানতের সর্বোচ্চ সুদহার ৬ শতাংশ নির্ধারণের বিষয়ে একমত হন ব্যাংক মালিকরা।  বৈঠকে সব বেসরকারি ব্যাংকের মালিকরা উপস্থিত ছিলেন। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দেয়া ব্যাংক মালিকদের প্রতিশ্রুতির অংশ হিসেবেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হলো। এ সময় বাড়তি সুদের আশায় আমানত এক ব্যাংক থেকে আরেক ব্যাংকে স্থানান্তর না করার বিষয়েও কঠোর হুঁশিয়ারির কথা জানান বিএবি'র চেয়ারম্যান।

বেসরকারি খাতের বড় ব্যাংক ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড আগামী জুলাই মাস থেকে বিনিয়োগ সুদের হার এক অংকে নামিয়ে আনার ঘোষণা দেয়ার পর এ ঘোষণা দিলো বিএবি। 
 
প্রসঙ্গত, বেসরকারি খাতে ঋণের প্রবাহ বৃদ্ধির সঙ্গে ব্যাংক ঋণে সুদের হারও বাড়ছে। ঋণের চাহিদা বেড়ে যাওয়ার কারণে কোনও কোনও ব্যাংক ১০ থেকে ১২ শতাংশ সুদে ঋণ দেয়া শুরু করে। বেশি সুদের লোভে কোনও কোনও ব্যাংক নির্ধারিত সীমার চেয়েও বেশি পরিমাণ ঋণ বিতরণ করে। এ কারণে সৃষ্টি হয় তারল্য সংকট। এমন অবস্থায় সুদের হার বাড়িয়ে আমানত সংগ্রহ করতে শুরু করে কিছু কিছু ব্যাংক। 

ব্যাংক ঋণে সুদহার প্রথম ১১ শতাংশের নিচে নেমে আসে ১৯৭৭ সালের ডিসেম্বরে। তখন সুদের হার ছিল ১০ দশমিক ৭৯ শতাংশ। এরপর ১৯৮০ সালের ডিসেম্বরে ১৩ শতাংশের ওপরে ওঠে। ১৯৮৩ সালে তা দাঁড়ায় ১৪ দশমিক ৫৫ শতাংশে। এরপর ১৯৯২ সালের জুনে ১৫ দশমিক ১২ শতাংশে দাঁড়ায়। এরপর থেকে ব্যবসায়ীরা সুদের হার কমানোর দাবি জানিয়ে।

এমন পরিস্থিতিতে ২০১২ সালে ব্যাংকগুলো নিজেরা বসে ঋণ ও আমানতে সুদহারে সর্বোচ্চ সীমা নির্ধারণ করে দেয়। এরপর থেকে ঋণের সুদহার ধারাবাহিকভাবে কমছে। ২০১৪ সালের প্রথম প্রান্তিকে গড় সুদহার ১২ শতাংশের ঘরে নেমে আসে। ২০১৩ সালে নেমে আসে ১১ শতাংশে। ২০১৬ সালের অক্টোবর পর্যন্ত তা ১০ শতাংশের ঘরে ছিল। নভেম্বরে প্রথমবারের মতো সেটি নেমে আসে এক অঙ্কে অর্থাৎ ৯ দশমিক ৯৪ শতাংশে।