DBC News
আইনি লড়াইয়ের বিকল্প উপায় খুঁজছে বিএনপি

আইনি লড়াইয়ের বিকল্প উপায় খুঁজছে বিএনপি

খালেদা জিয়ার মুক্তিতে আইনি লড়াইয়ে আর আস্থা রাখতে পারছে না বিএনপি। দলীয় প্রধানকে কারামুক্ত করতে তাই বিকল্প পথে হাঁটার চিন্তাভাবনা চলছে। এ নিয়ে বর্ষার পরে কঠোর কর্মসূচি নিয়ে রাজপথে নামার ইঙ্গিত দিয়েছেন নেতারা।

দুর্নীতির দায়ে সাজা পাওয়া মামলায় সর্বোচ্চ আদালত জামিন বহাল রাখলেও আরও ছয়টি মামলায় খালেদা জিয়াকে আটক দেখানোয় সহসাই মুক্তি পাচ্ছেন না তিনি। এক্ষেত্রে ক্ষমতাসীন দলের সদিচ্ছার অভাকেই বড় বাধা হিসেবে দেখছে বিএনপি। তাই শুধু আইনি লড়াইয়ের ওপর ভরসা না করে বিকল্প উপায়ে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার চিন্তা করছে দলটি।

জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতির ৫ বছরের সাজার মামলায় খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন আপিল বিভাগ বহাল রাখার পর আরও ৬টি মামলায় জামিন না হওয়ার প্রেক্ষাপটে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে বিএনপি। তারা তার সহসা মুক্তির আশা ছেড়ে দিয়েছেন।

দলের নীতি নির্ধারক পর্যায়ের নেতারা বলছেন, আগামী নির্বাচনে অযোগ্য করা এবং নির্বাচনের আগে মুক্তি না দেয়ার জন্য বেগম জিয়ার মামলা নিয়ে ষড়যন্ত্র করছে সরকার। ৬ টি মামলায় জামিন নিয়ে নিয়ে আদালত গড়িমসি করছে। একটির পর একটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হচ্ছে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, 'সরকার নিম্ন আদালত নিয়ন্ত্রণ এবং বিচার বিভাগে হস্তক্ষেপ করছে। সরকার যদি হস্তক্ষেপ না করে তাহলে ৭ দিনের মধ্যে খালেদা জিয়ার জামিন সম্ভব। কিন্তু সরকার চায় না তিনি মুক্তি পান, তাই আমাদের বিকল্প পথ খুঁজতে হবে।'

তিনি আরও বলেন, আমরা তো এভাবে নিশ্চুপ বসে থাকতে পারি না,আমাদের অপেক্ষা করতে হচ্ছে। কারণ সঠিক সময়ে সঠিক আন্দোলন করলেই সেটি সফল হয়।

আইনি লড়াই ছাড়া কিভাবে মুক্তি মিলবে খালেদা জিয়ার, তারই ইঙ্গিত দিলেন বিএনপি নেতা নজরুল ইসলাম খান।

নজরুল ইসলাম খান জানান, 'ছোট আদালত থেকে শুরু করে উচ্চ আদালত সবাই সরকারের ইচ্ছা পূরণের হাতিয়ার হিসেবে কাজ করছে।আইনি প্রক্রিয়ায় সম্ভব না হলে জনগণকে নিয়ে রাস্তায় তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলা ছাড়া কোন গণতান্ত্রিক দলের সামনে আর কোন পথ নেই।'

উপযুক্ত সময়েই সেই কর্মসূচি নিয়ে রাজপথে নামার কথা জানান তারা। খালেদা জিয়াকে মুক্ত করেই বিএনপি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেবে বলেও জানান নেতারা।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়া পাঁচ বছরের সাজা ভোগ করছেন। গত ৮ই ফেব্রুয়ারি থেকে তিনি পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের কারাগারে আছেন।

আরও পড়ুন

কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন আলোকচিত্রী শহিদুল আলম

১০৭ দিন কারাভোগের পর মুক্তি পেয়েছেন আলোকচিত্রী ড. শহিদুল আলম। মঙ্গলবার রাত পোনে ৯টার দিকে কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পান ড. শহিদুল আ...

'বর্ণচোরাদের ব্যালটের মাধ্যমে প্রত্যাখান করবে জনগণ'

যাঁরা এখনো মুজিব কোট পড়েন, বঙ্গবন্ধুর কথা বলেন, তাঁরা বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে এবং খুনিদের পৃষ্ঠপোষকদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। এর বিচার ৩০শে ডিসেম্বর দেশের জনগণ ত...

নয়াপল্টনে সংঘর্ষের ঘটনায় আটক ৭৮ জন

নয়াপল্টনে বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সংঘর্ষের ঘটনায় ৭৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এরমধ্যে ৬৫ জনকে সংঘর্ষের দিনই গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর গ্রেপ্তার করা হয়...

'বর্ণচোরাদের ব্যালটের মাধ্যমে প্রত্যাখান করবে জনগণ'

যাঁরা এখনো মুজিব কোট পড়েন, বঙ্গবন্ধুর কথা বলেন, তাঁরা বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে এবং খুনিদের পৃষ্ঠপোষকদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। এর বিচার ৩০শে ডিসেম্বর দেশের জনগণ ত...