DBC News
পৃষ্ঠপোষকদের চাপেই বাধ্য হচ্ছেন আয়োজকরা

পৃষ্ঠপোষকদের চাপেই বাধ্য হচ্ছেন আয়োজকরা

বদ্ধ আর অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ হলেও পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠানের চাপে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের পুরাতন ভবনেই আয়োজন করতে হচ্ছে জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতা।

একই কারণে অসময়ে করতে হচ্ছে আয়োজন। অভিযোগ শনিবার শেষ হওয়া দশম জাতীয় তায়কোয়ান্দো প্রতিযোগিতার আয়োজকদের।

ঈদের মাত্র কদিন আগে ১৫ জেলা, ৫ স্কুল আর বিশ্ববিদ্যালয় এবং ৭ অ্যাকাডেমিক ক্লাব থেকে তায়কোয়ানদো খেলোয়াড়দের জড়ো করা হয় ক্রীড়া পরিষদের পুরাতন ভবনে। রোজার মধ্যেই তায়কোয়ানদোর জাতীয় প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় তারা। কারণ বছরের অন্য সময় হলে মিলছিলো পৃষ্ঠপোষকদেরর আর্থিক সহযোগিতা।

গ্রীষ্মের প্রচন্ড গরম, সেটা থেকে রক্ষা পাওয়ার আধুনিক কিংবা প্রাচীন কোনো ব্যবস্থাই নেই এনএসসির এই ভবনে। কয়েকটা স্ট্যান্ড ফ্যান বাতাস জুগিয়েছে কর্মকর্তা আর গুটিকয়েক দর্শকের। এমন দুরবস্থার কথা স্বীকার করছেন আয়োজকরাই।

অথচ এমন প্রতিযোগিতা আয়োজনের আরও ভালো ভেন্যু ছিল রাজধানীতে। ছিল মিরপুর ইনডোর কিংবা এনএসসির কাছেই শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ ইনডোর স্টেডিয়াম।

এমন প্রতিযোগিতার জন্য সরকার থেকে যেহেতু তেমন কোনো বরাদ্দ নেই, তাই আয়োজকদের মানিয়ে নিতে হয় বেসরকারি পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠানের ইচ্ছা-অনিচ্ছার সঙ্গে।