DBC News
সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীতে ১০ লাখ মানুষ

সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীতে ১০ লাখ মানুষ

আগামী অর্থবছরে প্রায় ১০ লাখ মানুষকে সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনির আওতায় নিয়ে আসতে যাচ্ছে সরকার। তারপরও, বাইরে থাকবে ৮০ ভাগেরও বেশি দরিদ্র মানুষ।

অথচ, এ খাতের বরাদ্দের চার ভাগের এক ভাগই খরচ হয় স্বচ্ছল সরকারি চাকুরেদের পেনশনে। এ নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন অর্থনীতির গবেষকরা। অর্থনীতির মুল স্রোতের বাইরে থাকা দরিদ্র মানুষদের জন্যই সরকারের সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচী।

বিআইডিএস'র জ্যেষ্ঠ গবেষক ড. নাজনীন আহমেদ জানান, এক্ষত্রে আসলে একদম ছোট পদে চাকরী করতেন সেই ব্যক্তি যেমন আছেন  তেমনি সর্বোচ্চ পদে যিনি চাকরী করেছেন। যেমন সচিব বা সিনিয়র সচিব পর্যায়ের কর্মকর্তারাও আছেন। তাদের সবারই অবসর ভাতা কিন্তু এই সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর কর্মসূচি থেকেই যাচ্ছে বলেও জানান ড. নাজনীন আহমেদ।

দেশে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা এখন ৪ কোটি। চলতি অর্থবছরে ১১৮টি কর্মসূচীর আওতায় আর্থিক সুবিধা পাচ্ছেন ৭৫ লাখ মানুষ। এখনও সোয়া ৩ কোটিরও বেশি মানুষ রাষ্ট্রীয় সুরক্ষার বাইরে।

আগামী অর্থবছরে নতুন ১০ লাখ মানুষকে অন্তর্ভুক্ত করার পরিকল্পনা করছে সরকার। বাড়ছে বয়স্ক, বিধবা, অসচ্ছল, প্রতিবন্ধী, প্রসূতী মা ও ভিজিডির আওতায় সুবিধাভোগীর সংখ্যা।

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. জিল্লার রহমান জানান, আমাদের মন্ত্রণালয়ের হিসেবে যদি ১০ ভাগ বাড়ে তাহলে  ছয় লক্ষ বাড়ার কথা। ২০২১ সালের আগেই এইরকম সহায়তা পাওয়ার জন্য যারা আছেন তাদের কাছে সহায়তা পৌঁছে যাবে বলেও জানান জিল্লার রহমান।

২০১৫ সালে করা সরকারি হিসাবে সুরক্ষা কর্মসূচির মাধ্যমে দারিদ্র হার কমেছে ৮ শতাংশ।