DBC News
জাতিসংঘের সঙ্গে চুক্তি সইয়ে নেপিদো একমত

জাতিসংঘের সঙ্গে চুক্তি সইয়ে নেপিদো একমত

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সহযোগিতার বিষয়ে আগামী সপ্তাহে জাতিসংঘের সঙ্গে চুক্তি সইয়ে একমত হয়েছে মিয়ানমার। অনুকূল পরিবেশ তৈরি ও সহযোগিতার বিষয়ে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআর ও উন্নয়ন সংস্থা ইউএনডিপির সঙ্গেরোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে এ মত পোষন করে মিয়ানমার সরকার।

 

সমঝোতা স্মারকে কী থাকবে সে বিষয়ে বৃহস্পতিবার মিয়ানমারের রাজধানী নেপিদোতে দেশটির সরকারের সঙ্গে দুই সংস্থার মতৈক্য হয়েছে বলে বিবৃতিতে জানিয়েছে ইউএনএইচসিআর। এতে বলা হয়, পরিস্থিতি এখনও রোহিঙ্গাদের স্বেচ্ছায় ফেরার জন্য সহায়ক নয়, তাই বর্তমান অবস্থার পরিবর্তনে সহযোগিতা করতে এই সমঝোতা স্মারক হল প্রথম ও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ। 


রোহিঙ্গারা যাতে স্বেচ্ছায়, নিরাপদে নিজেদের ভূমিতে ফিরতে পারে এবং প্রত্যাবাসন যাতে স্থায়ী হয়, সে বিষয়েও একটি ‘ফ্রেমওয়ার্ক’ তৈরি করা হবে এই সমঝোতা স্মারকের আওতায়। ইউএনএইচসিআর বলছে, আগামী সপ্তাহেই এটা সই হতে পারে।

মিয়ানমার সরকারের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘শিগগিরই’ সমঝোতা স্মারক সই হবে এবং জাতিসংঘের সংস্থাগুলো রাখাইনে ‘কমিউনিটিভিত্তিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে‘ কর্মসংস্থানে সহায়তা করবে। 
 

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের জন্য গত বছর ১৯শে ডিসেম্বর ঢাকায় যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন করা হয়। চলতি বছর ১৫ই জানুয়ারি মিয়ানমারে ওয়ার্কিং গ্রুপের প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। চলতি বছরের ১৬ই জানুয়ারি রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর বিষয়ে 'ফিজিক্যাল অ্যারেঞ্জমেন্ট' নামের একটি চুক্তি করা হয়। চুক্তিতে প্রত্যাবাসন শুরুর দুই বছরের মধ্যে তা সম্পন্ন করা হবে বলে উভয় পক্ষ সম্মত হয়। এর আগে, রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে গত বছরের ২৩শে নভেম্বর মিয়ানমারের সঙ্গে একটি সম্মতিপত্র সই করে বাংলাদেশ। 

এরপর প্রত্যাবাসনের জন্য বাংলাদেশের পক্ষ থেকে মিয়ানমার সরকারকে আট হাজারের মতো রোহিঙ্গার একটি তালিকা দেয়া হলেও এখনও কেউ রাখাইনে ফিরতে পারেনি।

গত ১৩ই এপ্রিল সুইজারল্যান্ডের জেনিভায় এ বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারকে সই করে ইউএনএইচসিআর। এতে মিয়ানমারে ‘অনুকূল পরিবেশ তৈরি হলে’ রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সংস্থাটির সহায়তার কথা বলা হয়।

মিয়ানমারে নিপীড়নের শিকার রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর চার লাখের মতো মানুষ কয়েক দশক ধরে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়ে আছে। এরমধ্যে গতবছর ২৫ অগাস্ট রাখাইনে নতুন করে সেনাবাহিনীর দমন অভিযান শুরুর পর সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে এসেছে আরও সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা।

আরও পড়ুন

কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন আলোকচিত্রী শহিদুল আলম

১০৭ দিন কারাভোগের পর মুক্তি পেয়েছেন আলোকচিত্রী ড. শহিদুল আলম। মঙ্গলবার রাত পোনে ৯টার দিকে কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পান ড. শহিদুল আ...

'বর্ণচোরাদের ব্যালটের মাধ্যমে প্রত্যাখান করবে জনগণ'

যাঁরা এখনো মুজিব কোট পড়েন, বঙ্গবন্ধুর কথা বলেন, তাঁরা বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে এবং খুনিদের পৃষ্ঠপোষকদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। এর বিচার ৩০শে ডিসেম্বর দেশের জনগণ ত...

সিএনএন সাংবাদিকের হোয়াইট হাইজে প্রবেশাধিকার পুনর্বহাল

মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএনের সাংবাদিক জিম অ্যাকোস্টার হোয়াইট হাউজে প্রবেশাধিকার পাস পুনর্বহাল করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। সিএনএনের দায়ের করা মামলায় আদালতের নির্দেশে সোম...

অগ্ন্যুৎপাত; সরিয়ে নেয়া হয়েছে চার হাজার মানুষ

গুয়াতেমালার ফুয়েগো আগ্নেয়গিরিতে অগ্ন্যুৎপাতের কারণে আশপাশের এলাকা থেকে প্রায় চার হাজার মানুষকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। গুয়াতেমালার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থা কনরেড জা...