DBC News
জাতিসংঘের সঙ্গে চুক্তি সইয়ে নেপিদো একমত

জাতিসংঘের সঙ্গে চুক্তি সইয়ে নেপিদো একমত

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সহযোগিতার বিষয়ে আগামী সপ্তাহে জাতিসংঘের সঙ্গে চুক্তি সইয়ে একমত হয়েছে মিয়ানমার। অনুকূল পরিবেশ তৈরি ও সহযোগিতার বিষয়ে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআর ও উন্নয়ন সংস্থা ইউএনডিপির সঙ্গেরোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে এ মত পোষন করে মিয়ানমার সরকার।

 

সমঝোতা স্মারকে কী থাকবে সে বিষয়ে বৃহস্পতিবার মিয়ানমারের রাজধানী নেপিদোতে দেশটির সরকারের সঙ্গে দুই সংস্থার মতৈক্য হয়েছে বলে বিবৃতিতে জানিয়েছে ইউএনএইচসিআর। এতে বলা হয়, পরিস্থিতি এখনও রোহিঙ্গাদের স্বেচ্ছায় ফেরার জন্য সহায়ক নয়, তাই বর্তমান অবস্থার পরিবর্তনে সহযোগিতা করতে এই সমঝোতা স্মারক হল প্রথম ও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ। 


রোহিঙ্গারা যাতে স্বেচ্ছায়, নিরাপদে নিজেদের ভূমিতে ফিরতে পারে এবং প্রত্যাবাসন যাতে স্থায়ী হয়, সে বিষয়েও একটি ‘ফ্রেমওয়ার্ক’ তৈরি করা হবে এই সমঝোতা স্মারকের আওতায়। ইউএনএইচসিআর বলছে, আগামী সপ্তাহেই এটা সই হতে পারে।

মিয়ানমার সরকারের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘শিগগিরই’ সমঝোতা স্মারক সই হবে এবং জাতিসংঘের সংস্থাগুলো রাখাইনে ‘কমিউনিটিভিত্তিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে‘ কর্মসংস্থানে সহায়তা করবে। 
 

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের জন্য গত বছর ১৯শে ডিসেম্বর ঢাকায় যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন করা হয়। চলতি বছর ১৫ই জানুয়ারি মিয়ানমারে ওয়ার্কিং গ্রুপের প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। চলতি বছরের ১৬ই জানুয়ারি রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর বিষয়ে 'ফিজিক্যাল অ্যারেঞ্জমেন্ট' নামের একটি চুক্তি করা হয়। চুক্তিতে প্রত্যাবাসন শুরুর দুই বছরের মধ্যে তা সম্পন্ন করা হবে বলে উভয় পক্ষ সম্মত হয়। এর আগে, রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে গত বছরের ২৩শে নভেম্বর মিয়ানমারের সঙ্গে একটি সম্মতিপত্র সই করে বাংলাদেশ। 

এরপর প্রত্যাবাসনের জন্য বাংলাদেশের পক্ষ থেকে মিয়ানমার সরকারকে আট হাজারের মতো রোহিঙ্গার একটি তালিকা দেয়া হলেও এখনও কেউ রাখাইনে ফিরতে পারেনি।

গত ১৩ই এপ্রিল সুইজারল্যান্ডের জেনিভায় এ বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারকে সই করে ইউএনএইচসিআর। এতে মিয়ানমারে ‘অনুকূল পরিবেশ তৈরি হলে’ রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সংস্থাটির সহায়তার কথা বলা হয়।

মিয়ানমারে নিপীড়নের শিকার রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর চার লাখের মতো মানুষ কয়েক দশক ধরে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়ে আছে। এরমধ্যে গতবছর ২৫ অগাস্ট রাখাইনে নতুন করে সেনাবাহিনীর দমন অভিযান শুরুর পর সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে এসেছে আরও সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা।

আরও পড়ুন

শিশু ওয়ার্ডে ধারণক্ষমতার কয়েক গুণ বেশি রোগী

পিরোজপুর জেলা হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরে ধারণ ক্ষমতার কয়েক গুণ রোগী ভর্তি রয়েছে। ফলে ওয়ার্ডে বেড না পেয়ে, হাসপাতালের করিডোরে শিশুদের নিয়ে অবস্...

সাতক্ষীরার ডেঙ্গু আক্রান্ত ছাত্রের খুলনায় মৃত্যু

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জের ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে আলমগীর গাজী (১৪) নামের এক মাদ্রাসা ছাত্র খুলনায় মারা গেছে। বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে সে মারা যায়। এই প্রথম সাতক্ষীরা...

পাক সেনাপ্রধানের সঙ্গে ইমরান খানের বৈঠক

জম্মু-কাশ্মীরের বর্তমান নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়ে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল জাভেদ কামার বাজওয়ার সঙ্গে বৈঠক করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বৃহ...

ইয়েমেনের লক্ষ লক্ষ জনগণ মৃত্যু ঝুঁকিতে

ইয়েমেনে 'জাতিসংঘ মানবিক তৎপরতার' অর্থ শেষ হয়ে আসছে এবং শীঘ্রই সেখানে ১০ লক্ষের অধিক জনগণের খাদ্য রেশন সীমিত করা হবে। দাতাদের তরফ থেকে নুতন অর্থ সাহায্যের অঙ্গীক...